নিরাপদ সড়ক আন্দোলন ঘিরে নাশকতা যুবদল-ছাত্রদলের ৯ জন কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিরাপদ সড়কের দাবিতে কোমলমতি শিশুদের আন্দোলনের সময় নগরীর দামপাড়া-ওয়াসা এলাকায় পুলিশের গাড়িতে হামলা ও আঘাত করার অভিযোগে দণ্ডবিধি ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে দায়ের করা মামলায় বিএনপির সহযোগী সংগঠন যুবদল-ছাত্রদলের নয়জন নেতাকর্মীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। গতকাল মহানগর দায়রা জজ আকবর হোসেন মৃধার আদালত শুনানি শেষে আসামিদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। উচ্চ আদালত থেকে নেওয়া জামিনের মেয়াদ শেষ হলে আসামিরা গতকাল সোমবার মহানগর দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। আদালত তাদের জামিন আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
বিএনপি জামায়াতের নয়জন নেতাকর্মী হলেন, মো. আলম প্রকাশ চশমা আলম (৪২), করিম প্রকাশ ডিস করিম (৪০), মোস্তাকিম (৩৫), সোহেল (৩৫), মো. বাবুল (৩৫), নুরুল আলম শিপু (৩৫), সাদ্দামুল হক (৩২), সেলিম (৩৭) ও মো. নয়ন (২৮)।
জানা যায়, গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে মোস্তাকিম বাকলিয়া থানা ছাত্রদল সভাপতি, নুরুল আলম শিপু চকবাজার থানা ছাত্রদল সভাপতি এবং সাদ্দামুল হক চকবাজার থানা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক। অন্যরা বাকলিয়া ও চকবাজার থানা এলাকার যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মী।
মহানগর দায়রা জজ আদালতের সরকারি কৌসুলী ফখরুদ্দীন চৌধুরী সুপ্রভাতকে বলেন, উচ্চ আদালতের জামিন শেষে যুবদল ও ছাত্রদলের ৯ জন নেতাকর্মী আদালতে আত্মসমর্পণ করেন এবং জামিন আবেদন করেন। আদালত রাষ্ট্রপক্ষের বিরোধিতা আমলে নিয়ে আসামিদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
তিনি আরও বলেন, পুলিশের কাজে বাধা ও হামলার এই মামলায় মহানগর যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক এমদাদুল হক বাদশাহও আছেন। আদালতে আত্মসমর্পণের জন্য সময়ের আবেদন করে সে।
উল্লেখ্য, নিরাপদ সড়কের দাবিতে কোমলমতি ছাত্রদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকে পুঁজি করে নগরীর দামপাড়া-ওয়াসা এলাকায় বিশৃঙ্খলা, অন্তর্ঘাতমূলক কাজ পরিচালনা এবং লাঠিসোঁটা নিয়ে দাঙ্গা সৃষ্টি করে পুলিশের কাজে বাধা দান ও আঘাত করার অপরাধে বিএনপি-জামায়াতের চল্লিশজনের নাম উল্লেখ করে চকবাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করে পুলিশ।