গণমাধ্যমকর্মীদের সাথে মতবিনিময়

নিরাপদ নগর উপহার দিতে চান পুলিশ কমিশনার

নিজস্ব প্রতিবেদক

নবনিযুক্ত নগর পুলিশ কমিশনার মাহবুবুর রহমান বলেছেন, ‘জঙ্গি দমন ও মাদক প্রতিরোধ আমার মূল কাজ। আমি স্বীকার করছি, অপরাধ নিয়ন্ত্রণে যারা কাজ করেন তাদের কেউ কেউ অপরাধে জড়িত থাকে। সিএমপিতে আমার দায়িত্ব পালনকালে কোনো পুলিশ সদস্য মাদকে জড়িত থাকার প্রমাণ পেলে ছাড় দেব না। কোনো নিরীহ মানুষকে মাদক দিয়ে ফাঁসানোর প্রমাণ
পেলে কঠোর ব্যবস’া নেওয়া হবে। যে পুলিশ সদস্য মাদকে জড়িত তাকে আমি পুলিশ সদস্য বলে গণ্য করব না। অপরাধীর সাথেও পুলিশের সম্পর্ক থাকতে পারে না।’
গতকাল বুধবার দুপুরে নগরের দামপাড়া পুলিশ লাইন্সের মাল্টিপারপাস শেডে আয়োজিত ‘গণমাধ্যমের সাথে মতবিনিময়’ সভায় তিনি এ কথা বলেন। এর আগে গত মঙ্গলবার দুপুরে সিএমপি কমিশনার হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন ডিআইজি মো. মাহাবুবুর রহমান। নগরে মাদক ও জঙ্গিবাদসহ সকল অপরাধ নির্মূলে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে পুলিশ কমিশনার মো. মাহাবুবুর রহমান বলেন, ‘সেবা দিয়ে নগরবাসীর মন জয় করতে চাই। এক্ষেত্রে গণমাধ্যমের সহযোগিতা চাই। স্বস্তিদায়ক ও নিরাপদ নগর উপহার দিতে সিএমপির পক্ষ থেকে সহযোগিতা করা হবে।’
ঈদের ছুটিতে নিরাপত্তা জোরদার করার কথা জানিয়ে পুলিশ কমিশনার বলেন, ‘এবার ঈদের আনন্দ নগরবাসীর জন্য খুব খুশির দিন হবে। ঈদে নগরবাসীর বাসাবাড়ি পাহারা দেবে পুলিশ। নিরাপত্তায় বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন থাকবে।’
এক প্রশ্নের উত্তরে পুলিশ কমিশনার বলেন, ‘সরকারি সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে কেউ আমার কাছে তদবির করতে পারবেন না। সরকারি সিদ্ধান্তই সবসময় বাস্তবায়ন হবে।’ সভায় অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) মাসুদ উল হাসান, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) কুসুম দেওয়ান, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) আমেনা বেগম এবং সিএমপির সকল উপ-পুলিশ কমিশনারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং চট্টগ্রামে কর্মরত সাংবাদিকরা উপসি’ত ছিলেন।