নিরাপদ অভিবাসন সৃষ্টির লক্ষ্যে সরকার বদ্ধপরিকর : বিএসসি

বিজ্ঞপ্তি

‘বর্তমান সময়ে তৈরি পোশাক শিল্প দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে একটি গুরুত্বপূর্ণ খাত। দেশের পাশাপাশি বিদেশেও এর চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশেষ করে নারীদের কর্মসংস’ান ও ক্ষমতায়নে এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। তাই অভিবাসী গার্মেন্টস কর্মীরা নিরাপদে, মর্যাদা অক্ষুণ্ন রেখে বিদেশ গমন করে সম্মানের সাথে দেশে ফিরে আসবে, এই প্রচেষ্টা আমাদের সবার।’
গতকাল বুধবার বিকাল সাড়ে ৩টায় ঢাকার একটি হোটেলে আইএলও’র সহযোগিতায় আওয়াজ ফাউন্ডেশন আয়োজিত ‘বিদেশে তৈরি পোশাক শিল্পে বাংলাদেশি অভিবাসী নারী কর্মীর নিয়োগ, কর্মী পরিবেশ ও বাসস’ান’ সম্পর্কিত দুই দিনের প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস’ান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি এ কথা বলেন।
সরকারি ও বেসরকারি সকলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় একটি নিরাপদ ও টেকসই অভিবাসন সৃষ্টির লক্ষ্যে সবাইকে এক সাথে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।
কর্মসংস’ান মন্ত্রী আরও বলেন, ‘বিদেশগমনেচ্ছুক গার্মেন্টস নারী কর্মীদের প্রশিক্ষণকালে তাদের গন্তব্যদেশের কর্মপরিবেশ, বাসস’ান ও রীতি-নীতি সম্পর্কে আরও
অধিক অবহিত করার প্রয়োজন রয়েছে।’
মন্ত্রী বলেন, ‘অভিবাসী নারী কর্মীদের সুষ্ঠু, নিরাপদ ও নিয়মিত অভিবাসন, কর্মস’লের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ, কর্মীর অধিকার সুরক্ষা এবং কর্মী ও তার পরিবারের কল্যাণ সাধনের লক্ষ্যে বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর। এ লক্ষ্যে সরকার নানা ধরনের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। বিশেষ করে দক্ষ ও প্রশিক্ষিত নারী কর্মী প্রেরণে নানামুখী কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।’
তিনি আরও বলেন, নারী কর্মীদের ভাষা শিক্ষা ও দক্ষতার প্রয়োজন রয়েছে। তাই আমরা বিদেশ গমনেচ্ছু নারী কর্মীদের জন্য ভাষা শিক্ষা ও দক্ষতার উপরে সর্বাধিক গুরুত্ব প্রদান করছি।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আইএলও ঢাকা বাংলাদেশের ডেপুটি কান্ট্রি ডিরেক্টর এন্ড অফিসার ইনচার্জ গগন রাজভাণ্ডারী বলেন, নারী কর্মী নিয়োগ প্রক্রিয়া আরো স্বচ্ছ ও জবাবদিহি করতে হবে। এর আগে প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্য থেকে দুই দিনের কর্মশালার উপর দলীয় উপস’াপনা উপস’াপিত হয়।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের প্রফেসর ড. সি আর আবরার এর সভাপতিত্বে এতে আরও বক্তব্য রাখেন আওয়াজ ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক ও নির্বাহী পরিচালক নাজমা আক্তার, আইএলও দিল্লির ডব্লিউআইএফ প্রজেক্টের লগর বসক (সিটিএ)।
এতে আইএলও এবং আওয়াজ ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তাবৃন্দ, সিভিল সোসাইটির প্রতিনিধিবৃন্দ ও অভিবাসন বিষয়ক সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দসহ প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপসি’ত ছিলেন।