‘নায়িকা নয় আমি অভিনেত্রী’

সুপ্রভাত ডেস্ক

অনেক দিন বড় পর্দায় লিড চরিত্রে দেখা যাচ্ছে না ঊষসী চক্রবর্তীকে। কিন’ তিনি মুষড়ে পড়ার মানুষ নন। বরং যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি করছেন উইমেনস স্টাডিজ বিভাগে। আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে বলা হয়, ঊষসীর কথায়, ‘আমি নিজেকে নায়িকা ভাবি না, অভিনেত্রী ভাবি। আর শুধু অভিনয়টাই তো করি না। লেখালিখি করি, পিএইচডি করছি। তবে কাজের খিদেটা আছে।’ খবর পরিবর্তন’র।
বাঙালি নারী ফুটবলার কুসুমিতা দাসের চরিত্রে অভিনয় করছেন ঊষসী। ‘কুসুমিতার গপ্পো’-তে। ছবিটি বহু দিন ধরেই আটকে ছিল। শেষ পর্যনত্ম মুক্তির দিন নির্ধারিত হয়েছে। কিন’ এত সময় লাগল কেন?
ঊষসী বললেন, ‘আমি যেটুকু শুনেছি, প্রথমে অন্য প্রযোজক ছিলেন। পরে আর এক জন আসেন। দু’জনের মধ্যে কিছু আইনি সমস্যা হয়েছিল বলেই দেরি হল।’
ছবিটা নিয়ে তেমন প্রচার নেই বলে তিনি নাকি ড়্গুণ্ণ? ‘আমাকে যে প্রতিশ্রম্নতি দেওয়া হয়েছিল প্রচার নিয়ে, তার কিছুই হয়নি। আমি অনেক পরিশ্রম করেছি। সৃজিত মুখোপাধ্যায় স্বপ্না বর্মণকে নিয়ে স্পোর্টস বায়োপিক করছেন। আমাদেরটা আরও আগেই মুক্তি পেতে পারত!’ বললেন ঊষসী। তিনি মনে করেন, পরিচালক হৃষীকেশ ম-ল আরও উদ্যোগী হতে পারতেন ছবিটি নিয়ে।
ঊষসী এমনিতে ওয়েট লিফিটং করেন। কলকাতার একটি চ্যাম্পিয়নশিপে তিনি সোনাও জিতেছিলেন। তাই নিজের চেহারায় খেলোয়াড়ের গড়ন ফোটাতে আলাদা কিছু করতে হয়নি তাকে। কিন’ ফুটবলটা শিখতে হয়েছে। ভারতীয় মহিলা ফুটবল টিমের সাবেক ক্যাপ্টেন কুনত্মলা ঘোষ দসিত্মদারের কাছে তিন মাস প্রশিড়্গণ নিয়েছিলেন অভিনেত্রী।
বড় ব্যানারে ছবি না পাওয়ার দুঃখ রয়েছে ঊষসীর মনে। কিন’ তিনি আশাবাদী। ‘হয়তো ডাক পাব কোনও দিন,’ মনত্মব্য তার।