নানা ধর্মীয় আয়োজন

শ্যামা পূজা ও দীপাবলী উৎসব আজ

রুমন ভট্টাচার্য
images

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব শ্রীশ্রী শ্যামা কালী পূজা ও দীপাবলী উৎসব আজ।
কার্তিক মাসের অমাবস্যা তিথিতে শ্যামা পূজার আয়োজন করা হয়।
বিশুদ্ধ পঞ্জিকামতে, অমাবস্যা তিথি গতকাল বুধবার রাত ১২টা ২ মিনিটের পরে শুরু হয়ে আজ বৃহস্পতিবার ১২টা ১১ মিনিট পর্যন্ত থাকবে।
এর
মধ্যেই পূজার সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষ করতে হবে। একইসাথে আজ হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রতিটি ঘরে ঘরে এবং পূজামণ্ডপগুলোতে প্রদীপ জ্বেলে দীপাবলী উৎসবের আয়োজন করা হবে।
অমাবস্যা তিথিতে আজ নগরের বিভিন্ন পূজা মণ্ডপে এবং প্রতিষ্ঠিত কালী মন্দিরগুলোতে নানা ধর্মীয় আয়োজনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হবে শ্রীশ্রী শ্যামা পূজা। এছাড়া যেসব মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে প্রায় সব মণ্ডপেই আয়োজন করা হয়েছে শ্যামা পূজার।
এছাড়া বিভিন্ন পূজামণ্ডপে আয়োজন করা হয়েছে আলোচনা সভা, বস্ত্র বিতরণ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নৃত্যানুষ্ঠান এবং প্রসাদ বিতরণসহ নানা কর্মসূচি।
দীপাবলী সনাতনধর্মীদের উৎসব বিশেষ। এটি দেওয়ালি, দীপান্বিতা, দীপালিকা, সুখরাত্রি, সুখসপ্তিকা এবং যক্ষরাত্রি নামে অভিহিত। বাংলায় দীপাবলী শব্দটি হিন্দি দিওয়ালী থেকে এসেছে। যার অর্থ প্রদীপের সারি।
হিন্দু ধর্মানুসারীরা বিশ্বাস করে দীপাবলীর আলোয় সকল অশুভ শক্তি দূর হয়ে ঘটবে শুভ শক্তির আবির্ভাব। শুধু সনাতনধর্মীরাই নয়, শিখ ও জৈন ধর্মাবলম্বীরাও এ উৎসব পালন করে থাকে।
দীপাবলীর রাতে অনুষ্ঠিত হয় শ্যামা কালী পূজা।
হিন্দু পুরাণ মতে, কালী দেবী দুর্গারই একটি শক্তি। সংস্কৃত ভাষার কাল শব্দ থেকে কালী নামের উৎপত্তি। কালী পূজা হচ্ছে শক্তির পূজা। জগতের সব অশুভ শক্তিকে পরাজিত করে শুভশক্তির বিজয়ের মধ্যেই কালী পূজার মাহাত্ম্য। কালী দেবী তার ভক্তের কাছে শ্যামা, আদ্যা মা, তারা মা, চামুণ্ডা, ভদ্রকালী, দেবী মায়াসহ বিভিন্ন নামে পরিচিত। দুষ্টের দমন ও শিষ্টের লালনের মাধ্যমে ভক্তের জীবনে কল্যাণের অঙ্গীকার নিয়ে পৃথিবীতে আগমন ঘটে দেবী শ্যামা বা কালীর।
এদিকে, নগরীর সদরঘাট কালী বাড়ী, হাজারী লেইন, টেরীবাজার রঘুনাথ বাড়ী, টেরীবাজার বাই লেইন, চট্টেশ্বরী কালী বাড়ি, গোলপাহাড় মহাশশ্মান কালী বাড়ি, চকবাজার নরসিংহ আখেড়া, শিবমন্দির, পাঁচলাইশের করুনাময়ী কালী বাড়ি, ব্রহ্মময়ী কালী বাড়ি, উত্তর নালাপাড়া কাত্যায়নী ধাম, দক্ষিণ নালাপাড়ার চট্টলায়, গোসাইলডাঙ্গা কালী বাড়ি, লাভলেইন দয়াময়ী কালি বাড়ি, পাথরঘাটা রাধাকৃষ্ণ মন্দির, চেরাগী পাহাড় রাজাপুর লেইন-জামালখানা-মোমিন রোড পূজা উদযাপন পরিষদে মহাসমারোহে শ্যামা পূজা অনুষ্ঠিত হবে।
পূজা উপলক্ষে মন্দির ও পূজামণ্ডপগুলোকে সাজানো হয়েছে রঙিন আলোয়। পূজামণ্ডপগুলোর সামনে নির্মাণ করা হয়েছে তোরণ। রয়েছে নানা ধর্মীয় কর্মসূচি। সন্ধ্যায় দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে প্রতিটি পূজামণ্ডপসহ ঘরে ঘরে জ্বালানো হবে সহস্র প্রদীপ। বিকাল থেকে আলোচনা সভা, বস্ত্র বিতরণ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নৃত্যানুষ্ঠান ও প্রসাদবিতরণসহ নানা কর্মসূচি রয়েছে। রাতে অনুষ্ঠিত হবে পূজা ও পাঁঠাবলি। পূজা শেষ অঞ্জলি প্রদান ও প্রসাদ বিতরণ করা হবে।