নতুনদের পদচারণায় মুখর সিআইইউ

বিজ্ঞপ্তি

শীতের সকালে মিষ্টি রোদের আলো তখনও ছড়িয়ে যায়নি। ক্যাম্পাসের করিডোর দিয়ে ঢুকতেই চার-পাঁচজনের জটলা। কারও পিঠে ব্যাগ, কারও হাতে ডায়েরি। বেলা বাড়ার সঙ্গে-সঙ্গে বেড়ে যায় ভিড়। মুখর হয়ে ওঠে পুরো ক্যাম্পাস।
চিটাগং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটির (সিআইইউর) ২০১৯ সালের স্প্রিং সেমিস্টারের ক্লাস শুরম্নর প্রথম দিন গতকাল রোববারের চিত্রটা ছিল ঠিক এমনই। তারম্নণ্যের পদচারণায় জমজমাট হয়ে ওঠে সবকটি অনুষদ ও বিভাগ।
ঘঁড়ির কাটা সকাল ৯টা বাজতেই নতুন ভর্তি হওয়া শিড়্গার্থীরা একজন-দু’জন করে আসতে থাকেন প্রিয় সিআইইউ ক্যাম্পাসে।
সিআইইউর উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী নতুন ভর্তি হওয়া শিড়্গার্থীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে শিড়্গার্থীদের বেশি করে পাঠ্য বইয়ে ডুবে থাকার পরামর্শ দেন।
তিনি বলেন, যুগোপযুগী সিলেবাসে ছাত্র-ছাত্রীদের কর্মমুখী করে গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছি আমরা। শিড়্গার্থীদের যে কোনো সমস্যায় পাশে থাকবে এই শিড়্গাপ্রতিষ্ঠান। সিআইইউর লাইব্রেরি ও অ্যামেরিকান কর্নারেও ছিল নতুনদের ভিড়।
সিআইইউ কর্তৃপড়্গ জানায়, বর্তমানে এখানে বিজনেস স্কুল, স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, স্কুল অব লিবারেল আর্টস অ্যান্ড সোশ্যাল সায়েন্স ও স্কুল অব ল প্রোগ্রামের অধীনে রয়েছে একাধিক সব সাবজেক্ট। রয়েছে স্কলারশিপ ও পড়ালেখার পাশাপাশি ক্যাম্পাস জবের দারম্নণ সুযোগ।
কেমন লাগছে বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের প্রথম দিন? প্রশ্ন করতেই সাইফুল আলম নামের একজন ছাত্র বলেন, ভালো লাগছে। সবার সঙ্গে পরিচিত হয়েছি। ক্যাম্পাসের পরিবেশটা চমৎকার। দারম্নণ কাটবে সামনের দিনগুলো। নতুন বন্ধুদের সঙ্গে প্রথম দিনটি স্মরণীয় করে রাখতে মোবাইলে সেলফি তুলছিল আইরিন সুলতানা। তিনি বলেন, মনের মতো কিছু বন্ধু পেয়েছি। ক্লাসের স্যারদেরও খুব পছন্দ হয়েছে। ভালো মানের শিড়্গা অর্জন করে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে মেলে ধরতে চাই বিশ্বের বুকে।