‘দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখছেন প্রবাসীরা’

বিজ্ঞপ্তি

মধ্যপ্রাচ্যসহ সারাবিশ্বের প্রবাসী চট্টগ্রাম অঞ্চলের মানুষদের নানা সমস্যা নিরাসনসহ সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিলেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।
গতকাল বৃহস্পতিবার নগরভবনের কনফারেন্স হলে চট্টগ্রাম সমিতি ওমানের প্রতিনিধিদলের সাথে মতবিনিয় সভায় এ কথা বলেন।
চট্টগ্রাম সমিতি ওমানের সভাপতি মোহাম্মদ ইয়াছিন চৌধুরী সিআইপির নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলে সমিতির উপদেষ্টা মো. সামসুল আজিম আনছার সিআইপি, সহ-সংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, ক্রীড়া সম্পাদক মো. ইব্রাহিম চৌধুরী, আপ্যায়ন সম্পাদক আজিজুর রহমান এবং সদস্য আলম সিকদার, নুরম্নল আলম ও সফিউল আলম এবং জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক এজাজ মাহমুদ উপসি’ত ছিলেন।
মতবিনিময়কালে সমিতির নেতৃবৃন্দ জানান, ওমানে ৮ লাখ প্রবাসী বাংলাদেশীদের মধ্যে ৬০ ভাগই চট্টগ্রাম অঞ্চলের অধিবাসী। ব্যবসা বাণিজ্য এবং চাকুরিসহ নানা পেশায় তারা সম্পৃক্ত এবং দেশের রেমিটেন্স প্রবাহে বড় ধরনে অবদান রাখছে।
সমিতির সভাপতি ইয়াছিন চৌধুরী বলেন, সম্প্রতি দেশ থেকে আকাশপথে যাওয়া ইয়াবা, গাঁজাসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্যর চালান ওমানে ধরা পড়ায় বাংলাদেশিদের ইমেজ ড়্গুণ্ন হচ্ছে। এজন্য মাস্কাট বিমানবন্দরে কঠোর তলস্নাশিতে পড়তে হচ্ছে চট্টগ্রামসহ সারাদেশের প্রবাসীদের। এছাড়া তিনি চট্টগ্রাম শাহ আমানত আনত্মর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রবাসী সিআইপিদের ওয়েটিং রম্নমের নানা সমস্যার কথাও তুলে ধরেন।
মেয়র এসব সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়ে বলেন, দেশের অর্থনীতিতে বড় ধরনের অবদান রাখছে প্রবাসীরা। রেমিটেন্স যোদ্ধা খ্যাত প্রবাসীদের জন্য সরকার সর্বোচ্চ গুরম্নত্ব দিচ্ছে। তাই তাদের পাশে দাঁড়ানো এবং দেশে তাদের সমস্যাগুলো নিরসনে সবার দায়িত্ব রয়েছে। সে বোধ থেকে আমি তাদের পাশে দাঁড়িয়েছি। আমার দরজা প্রবাসীদের জন্য সবসময় খোলা থাকবে। প্রবাসীরা যে কোন সমস্যা নিয়ে এলে সর্বোচ্চ গুরম্নত্ব দিয়ে তা নিরসনে চেষ্টা চালিয়ে যাবেন বলে মেয়র তাদেরকে আশ্বসত্ম করেন।
বৈঠকে বিমানবন্দরে মাদকদ্রব্য প্রতিরোধে জোরালো ব্যবস’া গ্রহণ এবং প্রবাসীদের সর্বোচ্চ সুবিধা প্রদানের বিষয়ে মেয়র সিভিল অ্যাভিয়েশন, কাস্টম, ইমিগ্রেশনসহ সংশিস্নস্ট সংস’ার কর্মকর্তাদের সাথে মুঠোফোনে কথা বলেন। পরে সমিতির নেতৃবৃন্দরা মেয়রকে ইংরেজী নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে ওমান সফরের আমন্ত্রণ জানান।