দেশগ্রামে আনন্দমিছিল ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার মামলার রায়

সুপ্রভাত ডেস্ক

২০০৪সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার মামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে দেশগ্রামের বিভিন্নস’ানে আনন্দ মিছিল,র্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় বক্তারা,রায় দ্রুত কার্যকর করার দাবি জানানোর পাশাপাশি তারেক রহমানের ফাঁসির দাবি জানায়।
খাগড়াছড়ি:আমাদের খাগড়াছড়ি প্রতিবেদক জানায়,২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে স্বাগত জানিয়ে খাগড়াছড়িতে মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। গত বুধবার দুপুরে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার বাসভবন থেকে মিছিল বের হয়ে শহর প্রদক্ষিন করে। পরে খাগড়াছড়ি প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মনির হোসেন খান, পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য পার্থ ত্রিপুরা জুয়েল, মেহেদি হাসান হেলাল এবং জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি টিকো চাকমা। বক্তারা মামলার রায়ে সন’ষ্টি প্রকাশ করেন। তবে হামলার মাস্টার মাইন্ড তারেক রহমানের ফাঁসির দাবি জানান।
আনোয়ারা:আমাদের আনোয়ারা প্রতিনিধি জানায়,২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে ঘিরে গত বুধবার সকাল থেকে আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগে, ছাত্রলীগ ও অঙ্গসংগঠনের উদ্যোগে চাতরী চৌমুহনী বাজারে অবস’ান কর্মসূচি ও আনন্দ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।অবস’ান কর্মসূচি ও আনন্দ মিছিলে উপজেলা আওয়ামী লীগের এডহক কমিটির সদস্য ও পরৈকোড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এইচ.এম ওসমান গনি রাসেলের সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন মো. শামসুদ্দিন উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী, মিলন কান্তি ধর, জাফর উদ্দিন চৌধুরী, ফজলুল করিম চৌধুরী বাবুল, মহিউদ্দিন চৌধুরী টিপু, নজরুল ইসলাম, হাফেজ আবুল হাসান কাসেম, নজরুল আনসারী মুজিব, জানে আলম, ইয়াছিন হিরো, এম.এ কাইয়ূম শাহ্, আলমগীর আজাদ, শাহাদাত হোসেন, অসিম কুমার দেব, সালাহ উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী রিপু, মাঈনুদ্দিন খাঁন পিন্টু, বৈরাগ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি নুর হোসেন, নাজিম উদ্দিন, রফিক উদ্দিন, হারুন, সাজিয়া সোলতানা, পারভীন হাবিবা, কাজী ফেরদৌস, মো. এনাম, মো. হান্নান, মাহফুজ, মো. হালিম, দোলোয়ার হোসেন, টিটু, দিদারুল ইসলাম টিপু, মো. রশিদ, মোজাহিদুল ইসলাম সুমন, মো. জামাল, মো. এরফান আলী, আকাশ, আসিফ নেওয়াজ জিহান, আসিফ প্রমূখ।
চন্দনাইশ:আমাদের চন্দনাইশ প্রতিনিধি জানায়,২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশে বর্বরোচিত গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে কেন্দ্র করে বিএনপি জামায়াত শিবিরের নাশকতা প্রতিরোধ ও সাধারণ জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় চন্দনাইশ উপজেলার বিভিন্ন গুরুত্বপুর্ণ পয়েন্টে গণ জমায়েত ও সমাবেশ করে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। গত ১০ অক্টোবর ভোর থেকে নেতাকর্মীরা মিছিল সহকারে এসব গণ জমায়েতে উপসি’ত হন। প্রত্যেকটি গণ জমায়েতে বক্তব্য রাখেন আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম চৌধুরী এমপি। তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর থেকে আওয়ামী লীগকে নেতৃত্ব শূন্য করতে একের পর এক ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। তারই অংশ হিসেবে দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে তারেক জিয়ার নির্দেশে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা চালিয়েছিল বিএনপি, জামায়াত-শিবির। উপজেলার রওশনহাট বিজিসি ট্রাস্ট, গাছবাড়িয়া কলেজ গেইট, চন্দনাইশ সদর, সাতঘাটিয়া পুকুরপাড়, বুলার তালুক, দেওয়ানহাট, দোহাজারী পৌরসভা সদরে সরকারদলীয় নেতাকর্মীরা অবস’ান নিলেও উপজেলার কোথাও বিএনপি ও জামায়াত শিবির নেতাকর্মীদের মাঠে নামতে দেখা যায়নি। এদিকে রায় ঘোষণার পর উপজেলার বিভিন্ন স’ানে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা মিষ্টি বিতরণ করেন। তবে গ্রেনেড হামলার মুল হোতা তারেক জিয়ার ফাঁসির রায় না হওয়ায় কিছুটা হতাশ নেতাকর্মীরা। গণ জমায়েতে উপসি’ত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল জব্বার চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান, চন্দনাই পৌরসভার মেয়র মাহাবুবুল আলম খোকা, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি জাহিদুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, সহসভাপতি আবুল বশর ভুইয়া, এ্যাডভোকেট আবদুল হান্নান, চন্দনাইশ পৌরসভা আওয়ামী লীগ সভাপতি কায়সার উদ্দীন চৌধুরী, আরিফুল ইসলাম খোকন, সমীরণ দাশ তপন, জোয়ারা ইউপি চেয়ারম্যান আমিন আহমেদ চৌধুরী রোকন, হাশিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীরুল ইসলাম চৌধুরী, আবদুল শুক্কুর, সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান বেগ, সাতবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান আহমদুর রহমান ডিলার, উপজেলা কৃষকলীগ সাধারণ সম্পাদক নবাব আলী, কাউন্সিলর তৈয়ব আলী, উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক মো. তৌহিদুল আলম, মুরিদুল আলম মুরাদ, হেলাল উদ্দীন চৌধুরী, ইয়াছিন আরাফাত, মেজবাহ উদ্দীন খান ভুট্টো প্রমুখ।
রাউজান: আমাদের রাউজান প্রতিনিধি জানায়,গ্রেনেড হামলায় হত্যাকান্ডের মামলার রায় ঘোষনা করার পর আনন্দ মিছিল ও সমাবেশ করে রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগ,যুবলীগ, ছাত্রলীগ । গত ১০ অক্টোবর বুধবার সকাল থেকে রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যলয়ে অবস’ান নেয় সংসদ সদস্য এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী । কয়েকশ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতা কর্মী সংসদ সদস্য এবি এম ফজলে করিম চৌধুরীকে সাথে নিয়ে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে টেলিভিশনে আদালতের রায় প্রদানের সংবাদ দেখেন । দুপুর সাড়ে বারটায় সংসদ সদস্য এবি এম ফজলে করিম চৌধুরীর নেতৃত্বে কয়েকশ নেতা কর্মী আনন্দ মিছিল বের করে। ্মিছিলটি রাউজানের মুন্সির ঘাটা থেকে চট্টগ্রাম রাঙামাটি সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুনারায় মুন্সির ঘাটায় দলীয় কার্যলয়ে এসে শেষ হয় । মিছিল শেষে সমাবেশে সাংসদ এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি তার বক্তব্যে বলেন খালেদা জিয়া ও তার পুত্র আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করতে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা সহ দলীয় নেতা কর্মীদের হত্যা করার প্রচেষ্টায় গ্রেনেড হামলার ঘটনা ঘটায়। মহিলা আওয়ামী লীগের নেত্রী আইভি রহমান সহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতার তাদের হামলায় নিহত হলেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আল্লাহুর রহমতে প্রাণে বেঁচে যান । গ্রেনেড হামলার ঘটনার মামলার রায়ে দেওয়া শান্তি কার্যকর করার জন্য সমাবেশ থেকে দাবি জানানো হয় । রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কামাল উদ্দিন আহম্মদের সভাপতিত্বে ও রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক রাউজান পৌরসভার প্যানেল মেয়র বশির উদ্দিন খানের সঞ্চালনায় অনুষ্টিত সমাবেশে আরো উপসি’ত ছিলেন রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম, রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পৌর কাউন্সিলর আলমগীর আলী, রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের দ্প্তর সম্পাদক জসিম উদ্দিন চৌধুরী, রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ইফতেহার হোসেন দিলু, রাউজান পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম চৌধুরী, সাধারন সম্পাদক নুরুল ইসলাম শাহাজাহান, চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম, আবদুর রহমান চৌধুরী, প্রিয়তোষ চৌধুরী, সুকুমার বড়-য়া, নুরুল আবছার বাশি, বিএম জসিম উদ্দিন হিরু,সরোয়ার্দি সিকদার, কাজী ইকবাল, এ্যাডভোকেট সমীর দাশগুপ্ত, এ্যাডভোকেট দিলিপ কুমার চৌধুরী, শওকত হাসান চৌধুরী, রাউজান পৌরসভা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক জসিম উদ্দিন, রাউজান উপজেলা যুবলীগের সভাপতি পৌর কাউন্সিলর জমির উদ্দিন পারভেজ, রাউজান উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি সারজু মোহাম্মদ নাসের, সুমন দে, যুগ্ম সম্পাদক আহসান হাবিব চৌধুরী, কাজী রাশেদ, জাহাঙ্গীর আলম, হাসান মো. রাসেল, জিয়াউল হক রোকন, আবু সালেক, রাউজান উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জিল্লুর রহমান মাসুদ , সাধারন সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন পিপলু, রাউজান পৌরসভা ছাত্রলীগের সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী, সাধারন সম্পাদক মো. অশিফ, আরমান সিকদার, ফয়সল মাহমুদ।