‘দেবদাস’-এর অনুপ্রেরণায়…

অভি মঈনুদ্দীন = ছবি : মোহসীন আহমেদ কাওছার
4

বাংলাদেশে বিভিন্ন সময়ে শরৎ চন্দ্রের ‘দেবদাস’ নিয়ে চলচ্চিত্র এবং বেটা ফরম্যাটে চলচ্চিত্র নির্মিত হয়েছিলো। এদেশে ‘দেবদাস’ নামক দুটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছিলেন প্রয়াত চাষী নজরম্নল ইসলাম এবং বেটা ফরম্যাটে চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছিলেন শহিদুল ইসলাম মিন্টু। দুটি চলচ্চিত্রে এবং টেলিফিল্মে দেবদাস, পার্বতী ও চন্দ্রমুখী চরিত্রে বিভিন্ন সময়ে অভিনয় করেছিলেন বুলবুল আহমেদ, কবরী ও আনোয়ারা, শাকিব খান, অপু বিশ্বাস ও মৌসুমী এবং মাহফুজ আহমেদ, তারিন ও তানিয়া আহমেদ। এবার দেবদাস’ গল্পে অনুপ্রাণিত হয়ে নাট্যকার ও নির্মাতা জাকারিয়া শৌখিন নির্মাণ করতে যাচ্ছেন ‘জলসা ঘর’ নামের একটি টেলিফিল্ম। এতে দেবদাস, পার্বতী ও চন্দ্রমুখী চরিত্রে অভিনয় করবেন জিয়াউল ফারম্নক অপূর্ব, মেহজাবিন চৌধুরী ও জাকিয়া বারী মম। তবে জাকারিয়া শৌখিন জানান চরিত্র ঠিকই থাকবে কিন’ নাম পরিবর্তন করা হবে। জাকারিয়া শৌখিন বলেন,‘ শরৎ চন্দ্রের দেবদাস-এ অনুপ্রাণিত হয়ে আমি জলসা ঘর’র কাহিনী রচনা করেছি বর্তমান সময়ের প্রেড়্গাপটে। যে কারণে চরিত্রের নাম পরিবর্তন করা হচ্ছে। দর্শকের কাছে অনুরোধ থাকবে কোনভাবেই যেন আমার জলসা ঘর’কে দেবদাসের সাথে যেন না মিলিয়ে ফেলেন। শরৎ চন্দ্রের দেবদাস’র সাথে আমার জলসা ঘরকে মেলানো ঠিক হবেনা। তবে এটাও সত্য যে দেবদাস’-এ অনুপ্রাণিত হয়েই আমি এটি রচনা করেছি। আমার ভাবনায় যেসব শিল্পী এসেছেন তাদের নিয়েই আমি কাজ করতে যাচ্ছি।’ কেন নাম করণ জলসা ঘর দিয়েছেন? এমন প্রশ্নের জবাবে শৌখিন বলেন,‘ দেবদাসের জীবন হচ্ছে জলসা ঘরের মতোই। ড়্গণিকের আনন্দ , পরড়্গণেই আবার বেদনা ভর করে তার জীবনে। তাই তার জীবনকে প্রাধান্য দিয়ে নাম করণ করেছি জলসা ঘর। শৌখিন জানান শিগগরিই ‘জলসা ঘর’র শুটিং হবে। অপূর্ব, মম এবং মেহজাবিন ধাপে ধাপে এই টেলিফিল্মের কাজে অংশ নিবেন বলে জানিয়েছেন নির্মাতা। ‘জলসা ঘর’ নির্মিত হবে স্যাটেলাইট চ্যানেলে বাংলা ভিশনের নিজস্ব প্রযোজনায়। আগামী ঈদে বাংলা ভিশনেই ‘জলসা ঘর’ প্রচার হবে।