টেকনাফ-শামলাপুর

দুর্ভোগে হাজারো মানুষ সড়ক যেন মৃত্যুফাঁদ

জিয়াবুল হক, টেকনাফ

টেকনাফ-শামলাপুর সড়কের বাহারছড়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের নোয়াখালী পাড়ায় একটি কালভার্টের অংশ ভেঙে সড়কের মাঝে যেন মৃত্যুফাঁদে পরিণত হয়েছে। এতে এই সড়কে চলাচলকারীরা যেকোন মুহুর্তে বড় ধরনের দূর্ঘটনার আশংকা করছেন। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, টেকনাফ-শামলাপুর সড়ক দিয়ে একসময় দূরপালস্নার বাস, ট্রাক, হায়েস,  নোহা, টমটম, মিনি টমটম চলাচল করলেও প্রায় ৫-৬ মাস পূর্বে একটি কালভার্টের বিশাল অংশ ভেঙে যাওয়ার কারণে বন্ধ রয়েছে ভারি যান চলাচল। কিন’ অতি ঝুঁকি নিয়ে টমটম, মাহিন্দ্রা্র, সিএনজিসহ ছোট যানগুলো চলাচল করছে। বাহারছড়া ইউনিয়নের নোয়াখালী পাড়াস’ টেকনাফ-শামলাপুর সড়কের ইলিয়াছ কোবরা বাজারের পাশের একটি কালভার্টের কারণে এই বেহাল দশা হয়েছে। কালভার্টের মাঝখানে গর্ত হয়ে যাওয়ায় অতি ঝুঁকিতে চলাচল করছে ছোট যানবাহনগুলো। চলাচল করতে গিয়ে পথচারীরাও পড়েছে বিপাকে। ইতিমধ্যে কয়েকটি ছোট যান দূর্ঘটনায় পতিত হয়েছে। এতে অনেকে আহতও হয়েছে। দীর্ঘ ৫-৬ মাস ধরে কালভার্টটির এমন দশা হলেও সংশিস্নষ্ট দপ্তরের কেউ দেখার নেই। যে  কোন মুহুর্তে ওই কালভার্টের ফলে বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটার আশংকা করছেন সচেতনমহল। নোয়াখালীয়া পাড়া এলাকার যুব কল্যাণ সোসাইটির সভাপতি আব্দুর রহমান জানান, দীর্ঘ ৫/৬ মাসের অধিক সময় ধরে কালভার্ট ভেঙে গেলেও সংশিস্নষ্ট কর্মকর্তাদের নজর নেই। কোন রোগী জরম্নরিভিত্তিতে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে যেতে চাইলে ওই কালভার্টের কারণে অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়না। ফলে অনেক সময় দূর্ভোগে পড়তে হয়। তিনি দ্রুত কালভার্টটি মেরামতের দাবি জানান তিনি।বাহারছড়া ইউপির ভারপ্রাপ্ত  চেয়ারম্যান মো. কাশেম জানান, এই কালভার্টটি যেহেতু এলজিআরডি আওতাধীন তাই বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সহ সংশিস্নষ্টদের অবগত করা হয়েছে। আশা করি এ বিষয়ে দ্রুত পদড়্গেপ গ্রহণ করা হবে।