দুর্ভিক্ষের অশনিসংকেত, তবু থামছে না ইয়েমেন যুদ্ধ

সুপ্রভাত ডেস্ক

দুর্ভিক্ষের দ্বারপ্রান্তে গৃহযুদ্ধকবলিত ইয়েমেন। তবুও বিস্তৃত হচ্ছে মার্কিন সামরিক অভিযান। দুর্ভিক্ষের অশনিসংকেত যুদ্ধ থামাতে পারেনি। বরং দিনকে দিন বাড়ছে ছায়াযুদ্ধের শঙ্কা। ইয়েমেনে যুদ্ধরত সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটকে শুরু থেকেই সহায়তা দিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। সেই সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ করতে তৎপর ট্রাম্প প্রশাসন।
দেশটিতে ‘শত্রু’ এলাকা ঘোষণা করে নির্বিচারে অভিযান চালাতে চান ট্রাম্প। নির্বিচার অভিযানের সিদ্ধান্ত বাড়িয়েছে বেসামরিক মৃত্যুর শঙ্কা। যুদ্ধ আর দুর্ভিক্ষের দোলাচলে অনিশ্চয়তায় থাকা বেসামরিক ইয়েমেনিদের জীবন ক্রমাগত ছুটছে আরও অনিশ্চয়তার দিকে। জাতিসংঘের খাদ্য এবং কৃষি সংস’ার তথ্যমতে, ইয়েমেন এখন দুর্ভিক্ষের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে রয়েছে। সংস’াটির মতে, ২ বছর ধরে চলা গৃহযুদ্ধের কারণে দেশটির অন্তত ১ কোটি ২০ লাখ মানুষ দুর্ভিক্ষের হুমকির মুখে পড়েছেন।
যত দিন যাচ্ছে, অবস’া ততই শোচনীয় হয়ে পড়ছে। সংস’াটির তথ্য মতে, ইয়েমেনে অন্তত ৩৩ লাখ মানুষ অপুষ্টিতে ভুগছে। এর মধ্যে শিশুর সংখ্যা ২১ লাখ। ৫ বছরের নিচের ৪ লাখ ৬০ হাজার শিশু অপুষ্টিজনিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়েছে। মোট নাগরিকের ৫৫ শতাংশই ন্যূনতম স্বাস’্যসেবা বঞ্চিত।
এদিকে গৃহযুদ্ধ ও দুর্ভিক্ষকবলিত ইয়েমেনে অব্যাহত রয়েছে মার্কিন সমর্থিত সৌদি জোটের হামলা। পাশাপাশি ‘সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানের নামে প্রত্যক্ষ মার্কিন হামলাও রয়েছে।
নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদন বলছে, এ মাসে সমগ্র ইয়েমেনজুড়ে ৪৯টিরও বেশি হামলা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এক বছরে এতো বেশি সংখ্যক হামলা এর আগে কখনও চালায়নি যুক্তরাষ্ট্র। ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে ইয়েমেনে সন্দেহভাজন আল কায়েদাকে লক্ষ্য করে চলমান মার্কিন বিমান হামলার খবরটি নিশ্চিত করা হয়েছে।