দুই বাসের প্রতিযোগিতা ধাক্কায় দুমড়ে-মুচড়ে গেল সাত অটোরিকশা ১৮ যাত্রী আহত

নিজস্ব প্রতিনিধি, বাঁশখালী

চট্টগ্রামের বাঁশখালী প্রধান সড়কের টাইম বাজারে গতকাল মঙ্গলবার বিকাল ৫ টায় দুটি যাত্রীবাহী বাস একে অপরকে ওভার টেকিং করতে গিয়ে যাত্রীবাহী বাসের আঘাতে ৭টি সিএনজি অটোরিকশা দুমড়ে-মুচড়ে পড়ে। এ ঘটনায় ওই অটোরিকশাগুলোর ১৮ যাত্রী আহত হয়েছেন। তাদের বাঁশখালী উপজেলা স্বাস’্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে গুরুতর আহত বিমল দাশকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস’ল থেকে থানা পুলিশ ওই বাসটি করেছে।
উল্লেখ্য, ঘটনাস’লের ৫০ হাত দূরে গত সোমবার (৯ অক্টোবর) সকাল ৭টায় মনছুরিয়া বাজারের দক্ষিণে দ্রুতগামী মালবাহী ট্রাকচাপায় শাহেদা আক্তার (১৩) ও মুর্শিদা বেগম (১৩) নামের দুই সহপাঠী মাদ্রাসাছাত্রী নিহত হয়েছিল।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাঁশখালীতে স’ানীয় ভাষায় সুপার সার্ভিস ও স্পেশাল সার্ভিস নামের দুই ধরণের বাস সার্ভিস আছে। সুপার সার্ভিস বাস দরজা বন্ধ করে চালায় আর স্পেশাল সার্ভিস বাস যত্রতত্র যাত্রী উঠানামা করে। অনেক দূর থেকে সুপার
সার্ভিস বাসটি, স্পেশাল সার্ভিস বাসটিকে ওভারটেকের চেষ্টা করে। কিন’স্পেশাল সার্ভিসের গোয়ার প্রকৃতির গাড়িচালক বেঁকে বসে। টাইম বাজার এলাকায় পৌঁছলে সুপার সার্ভিসের গাড়িচালক বেপরোয়া গতিতে ওভারটেক করার এক পর্যায়ে বিপরীত দিক থেকে আসা সম্মুখ প্রান্তের ৭টি সিএনজি অটোরিকশাকে বেপরোয়া গতিতে চাপা দিয়ে অগ্রসর হয়। কিছুদূর গিয়েই রোড ইনডিকেটরে ধাক্কা লেগে বাসটি থেমে যায়। ততক্ষণে ৭টি সিএনজি অটোরিকশা দুমড়ে-মুচড়ে গিয়ে যাত্রীরা গুরুতর আহত হয়। এ অবস’া দেখে এলাকায় শত শত মানুষ ভিড় করে। বাঁশখালী থানা পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।
বাঁশখালী হাসপাতালে ভর্তি হওয়া আহতরা হচ্ছে, মানিক (১৮), সোহেল (৩০), মোবিন (২৬), দেলোয়ার (৫০), আশেক (১৪), লক্ষ্মী রাণী দেব (৪৮), মমতা (২৫), বিমল দাশ (৩২), টুম্পা (৩০), ছোটন (২৫), আরতি (৬৫), আকাশ উদ্দিন (৪৫), বিপুল (২৮), জনোইদা (১৮) ও ইফাত (৮)।
বাঁশখালী থানার উপ-পরিদর্শক রুহুল আমিন বলেন, বাসটি ও দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়া সিএনজি অটোরিকশাগুলো জব্দ করা হয়েছে। আহতদের হাসপাতালে চিকিৎসার ব্যবস’া করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস’তি চলছে।