আধিপত্য বিস্তারের জের

দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ২ জন গুলিবিদ্ধসহ আহত ১২

নিজস্ব প্রতিনিধি, সাতকানিয়া

সাতকানিয়া উপজেলার খাগরিয়া ইউনিয়নে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এ ঘটনায় দুইজন গুলিবিদ্ধ ও ১০ জন আহত হয়েছেন। গতকাল রোববার দুপুর সাড়ে ১২টায় খাগরিয়া ৪ নম্বর ওয়ার্ড তৈয়রপাড়া এলাকায় সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুস ছালাম ও বর্তমান ইউপি সদস্য লিয়াকত আলী গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের ১৪টি ঘর ভাঙচুর হয়।
স’ানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় পূর্বের একটি বিরোধকে কেন্দ্র করে জাফর আলম লোকজন নিয়ে ছালাম গ্রুপের জিয়াবুলের ঘরে ভাংচুর চালায়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুপুর সাড়ে ১২টায় আব্দুস ছালাম দলবল নিয়ে লিয়াকত গ্রুপের লোকজনের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ঘরবাড়ি ভাঙচুর করে।
এসময় উভয় পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে গেলে তাদের মধ্যে ২০ রাউন্ড গোলাগুলি হয়। এতে মো. সাকিব (২০) ও মো. জসিম উদ্দিন (৩৫) নামের দু’জন গুলিবিদ্ধ এবং জাহাঙ্গীর আলম (৩০), সাহিদা আক্তার (২৪), শারমিন আক্তার (২৭), মোহছেনা খাতুন (৮০) ও আনুশা ছিদ্দিকা (২২) নামের এক শিক্ষার্থী আহত হন। আহতদেরকে দোহাজারী হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। অবস’ার অবনতি হওয়ায় গুলিবিদ্ধ দুইজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
খবর পেয়ে সাতকানিয়া থানা ঘটনাস’লে গেলে এলাকাটি পুরুষশূন্য হয়ে যায়। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের নুরুল আলম, জসিম উদ্দিন, জাফর আলম, বশির আহমদ, জয়নাল, আক্কাস উদ্দিন, রহিমা খাতুন, জিয়াবুল, সৈয়দ মিয়া, বারেক, আবু তাহের ও মনির আহমদের ঘর ও বেলালের মুদির দোকান ভাঙচুর করা হয়। যোগাযোগ করা হলে ইউপি সদস্য লিয়াকত আলী বলেন, ঘটনার সময় আমি দূরে ছিলাম। যারা আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন, ছালামের লোকজন তাদের ঘর ভাঙচুর ও তছনছ করেছে।
সাতকানিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস’লে যাই। আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের মধ্যে সংর্ঘষ হয়। এসময় বেশকিছু ঘরবাড়ি ভাঙচুর হয়েছে।