দীঘিনালায় প্রতিপড়্গের গুলিতে ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিকের কর্মী নিহত

নিজস্ব প্রতিনিধি, দীঘিনালা

দীঘিনালায় প্রতিপড়্গের গুলিতে এক ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিকের এক কর্মী নিহত হয়েছেন। নিহত কর্মীর নাম সুমেন’ চাকমা (২৮)। তিনি দীঘিনালা উপজেলার চংড়াছড়ি এলাকার বড়াদম গ্রামের শানিত্ম বিকাশ চাকমার ছেলে। শুক্রবার রাত আড়াইটায় তার নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিক প্রতিপড়্গ প্রসিত বিকাশ সমর্থিত ইউপিডিএফকে দায়ী করেছে। তবে ঘটনার দায় অস্বীকার করেছে, ইউপিডিএিফ। ঘটনার পর পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করেছে।
জানা গেছে, সুমেন’ চাকমা সাংগঠনিক কাজ শেষ করে উপজেলার চংড়াছড়ি এলাকার বড়াদম গ্রামের নিজ বাড়িতে গিয়েছিলেন। পরে রাতে ঘুমিয়ে যাওয়ার পর ঘরের পেছনের দরজা খুলে ঘুমনত্ম অবস’ায় প্রতিপড়্গের লোকজন মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে গুলি করে মৃত্যু নিশ্চিত করে। সুমেন’ চাকমা
ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিক চংড়াছড়ি এলাকার একজন সক্রিয় কর্মী। সুমেন’ চাকমার এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।
এ ব্যাপারে ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক দীঘিনালা উপজেলা সংগঠক প্রনয় বিকাশ চাকমা জনান, নিহত সুমেন’ চাকমা আমাদের সংগঠনের সক্রিয় কর্মী। প্রসিত বিকাশ সমর্থিত ইউপিডিএফের সন্ত্রাসীরা তাকে গুলি করে হত্যা করেছে।
তবে ঘটনার অভিযোগ অস্বীকার করে, ইউপিডিএফের খাগড়াছড়ি জেলা সংগঠক মাইকেল চাকমা জানান, তাদের অভ্যনত্মরীণ দ্বন্দ্বে এ ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। আমাদের সংগঠনের কেউ ঘটনার সাথে জড়িত নই।
নিহতের স্ত্রী চম্পা চাকমা জানান, আমরা খাওয়া-দাওয়া করে ঘুমিয়ে যাই। সন্ত্রাসীরা পেছনের দরজা খুলে ঘরের ভেতর ঢুকে মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে গুলি করে চলে যায়। গুলি করার পর পেছন থেকে আমি দুজন লোককে দেখেছি। তবে চিনতে পারিনি।
দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ (তদনত্ম) রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছে।