থাই কিশোররা যেভাবে গুহার ভেতর বেঁচেছিল

সুপ্রভাত ডেস্ক

‘থাম লুয়াং’ গুহায় প্রবেশের নয় দিন পর থাই কিশোর ফুটবল দলটিকে খুঁজে পাওয়া যায়।
এই সময়ে তারা গুহার দেয়াল বেয়ে গড়িয়ে পড়া পানি খেয়ে বেঁচেছিল বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। তবে কিভাবে শুধু পানি খেয়ে জলমগ্ন ওই গুহায় নয় দিন বেঁচে ছিল কিশোর দলটি তা এখনও অনেকের কাছেই বিস্ময়। খবর বিডিনিউজের।
গত ২৩ জুন ‘ওয়াইল্ড বোয়ার’ নামে ওই কিশোর ফুটবল দলটির ১২ সদস্য ও তাদের কোচ এক কিশোরের জন্মদিন উদযাপন করতে চিয়াং রাই প্রদেশের ওই গুহায় প্রবেশ করে।
দলটি প্রবেশের পর ভারি বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট পাহাড়ি ঢলে গুহার ভেতর পানি ঢুকে তাদের বের হওয়ার পথ বন্ধ হয়ে যায়।
দলটি জন্মদিন উদযাপন করতে গুহায় প্রবেশ করেছিল। এর অর্থ, তাদের কাছে কিছু খাবার ছিল। যেটা তাদের নয় দিন বাঁচিয়ে রাখতে সাহায্য করেছে বলে ধারণা কর্মকর্তাদের।
এরপরও কিশোর দলটির গুহার ভেতর থেকে বেঁচে ফেরাকে বিস্ময়করই বলছেন থাই নেভি সীল’র প্রধান রিয়ার অ্যাডমিরাল আর্পাকর্ন ইউকংকেউ।
তিনি বিবিসিকে বলেন, ‘যখন আমরা দলটিকে খুঁজছিলাম তখন তাদের জীবিত থাকার আশা খুব সামান্যই ছিল, কিন’ আমাদের এটা করতেই হত, কিছু চিন্তা না করে আমরা শুধু তাদের খোঁজে সামনে অগ্রসর হয়েছি।
‘সেখানে খুব সামান্য আশা ছিল, কিন’ আমাদের একজোট হয়ে কাজ করতে সেটাই যথেষ্ট ছিল।’
নানা নাটকীয়তার মধ্যদিয়ে গত রোববার কিশোর ফুটবল দলটিকে বের করে আনার চূড়ান্ত অভিযান শুরু হয়। মঙ্গলবারের মধ্যে ১৩ জনের দলের সবাইকে নিরাপদে গুহার বাইরে নিয়ে আসেন ডুবুরিরা।
হাসপাতালে তাদের চিকিৎসা চলছে। অনাহার জনিত দুর্বলতা ছাড়া তারা সুস’ই আছে।
রোববার বের করে আনা প্রথম চার কিশোর এরই মধ্যে স্বাভাবিক খাবার খেতে শুরু করেছে বলে জানান থাই কর্মকর্তারা।