আগরতলায় ব্যবসায়ী সম্মেলন

ত্রিপুরার উন্নয়নকাজে অংশীদার হতে চায় ডায়মন্ড সিমেন্ট

ত্রিপুরায় ব্যবসায়ী সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন ডায়মন্ড সিমেন্টের পরিচালক লায়ন হাকিম আলী
ত্রিপুরায় ব্যবসায়ী সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন ডায়মন্ড সিমেন্টের পরিচালক লায়ন হাকিম আলী

ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের অবকাঠামো উন্নয়নের ব্যাপক কর্মকাণ্ডে অংশীদার হতে চায় বাংলাদেশের অন্যতম সিমেন্ট উৎপাদক ও রপ্তানিকারক ডায়মন্ড সিমেন্ট লিমিটেড। এ লক্ষ্যে সেখানে বাজার সমপ্রসারণ ও বিপণনে ব্যাপক কর্মসূচি নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।
গত শুক্রবার ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলায় সিমেন্ট ব্যবসায়ী ও ব্যবহারকারীদের বিক্রয় সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।
সম্মেলনে জানানো হয়, অভ্যন্তরীণ অবকাঠামো উন্নয়নের পাশাপাশি প্রতিবেশী বাংলাদেশের সাথে রেল ও সড়ক যোগাযোগে ব্যাপক কর্মকাণ্ড চলছে ভারতের ছোট এই রাজ্যটিতে। ২০১৫ সাল থেকে সেখানে রপ্তানি হচ্ছে ডায়মন্ড সিমেন্ট।
ত্রিপুরার সিমেন্টের চাহিদার অর্ধেকের বেশি বাংলাদেশী সিমেন্ট দিয়ে পূরণ হচ্ছে উল্লেখ করে ডায়মন্ড সিমেন্টের পরিচালক লায়ন হাকিম আলী বলেন, মাসিক ২৫ হাজার মেট্রিক টন মধ্যে ১৭ হাজার টন সিমেন্টই যাচ্ছে বাংলাদেশ থেকে। বর্তমানে ডায়মন্ড সিমেন্টসহ ১১টি ব্র্যান্ডের সিমেন্ট সেখানে রপ্তানি হচ্ছে। উন্নয়ন কর্মযজ্ঞের কারণে দিনে দিনে বাড়ছে চাহিদা। ক্রমবর্ধমান বাজারটা ধরতেই নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে ডায়মন্ড সিমেন্ট।
হাকিম আলী বলেন, উন্নত মান ও সঠিক দামের কারণে বাংলাদেশ লাগোয়া ত্রিপুরায় বেশ কদর রয়েছে বাংলাদেশী পণ্যের। গত বেশ কয়েক বছর নির্মাণ উপকরণ, প্লাস্টিক ও খাদ্য সামগ্রীসহ বাংলাদেশী অনেক পণ্যে ত্রিপুরার বিশাল বাজার দখল করে আছে। এতে দু’দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক ঘাটতি কমে যাওয়ার পাশাপাশি পারস্পারিক সম্প্রীতি সৃদৃঢ় হচ্ছে বলে তাঁর অভিমত। বিক্রয় সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে ডায়মন্ড সিমেন্টের ডিজিএম (মার্কেটিং) এম. এ রহিম, ম্যানেজার (মার্কেটিং) মোখলেসুর রহমার এবং ত্রিপুরার পরিবেশক ওমর ফারুক চৌধুরী বক্তব্য রাখেন। সম্মেলনে ত্রিপুরার সরকারি, বেসরকারি সংস’ার প্রকৌশলী ও সিমেন্ট ব্যবসায়ী এবং চট্টগ্রাম থেকে যাওয়া প্রতিনিধি দলের সদস্যরা উপসি’ত ছিলেন। বিজ্ঞপ্তি