জিম্বাবুয়ে সিরিজ

তবুও সতর্ক বিসিবি

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক

দলটি জিম্বাবুয়ে। আইসিসি টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি র্যাংকিংয়ে যারা বেশ লম্বা সময় ধরেই বাংলাদেশ থেকে পিছিয়ে রয়েছে। এই দলটিই আগামী ১৬ অক্টোবর বাংলাদেশ সফরে এসে স্বাগতিকদের বিপক্ষে ৩টি ওয়ানডে ও ২টি টেস্ট খেলবে। খবর বাংলানিউজ’র।
ক্রিকেট পাড়ায় জোর গুঞ্জন তুলনামূলক সহজ প্রতিপক্ষের বিপক্ষে আসন্ন এই সিরিজটিতে সিনিয়রদের বিশ্রামে দিয়ে নতুনদের সুযোগ দেয়া হবে। তাতে করে বাংলাদেশ ক্রিকেট আগামীতে কিছু নতুন ক্রিকেটার পাবে।
কিন’ না। সহজ প্রতিপক্ষ হলেও কোনো ঝুঁকিই নিতে চাইছে না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বরং সিরিজটিকে নিয়ে বেশ সতর্ক বাংলাদেশ ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক এই সংস’াটি।
গতকাল দল গঠন নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তেমনই আভাস দিলেন টাইগারদের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।
‘সেরা একাদশটাই দাঁড় করানো হয়েছে। কারণ প্রতিটি সিরিজ আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এখানে কোনোরকম হালকা ভাবে নেয়ার কোনো সুযোগ নেই। আমাদের সেরা দলটাই খেলবে। যেহেতু র্যাঙ্কিং এর ব্যাপার আছে, পয়েন্ট এর ব্যাপার আছে। এই জন্য আমরা আমাদের সেরা পারফরম্যান্সটা দেখতে চাই।’
বাঁহাতের কনিষ্ঠার চোটে আসন্ন সিরিজটিতে দলে থাকছেন না বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। আর ওপেনার তামিম ইকবাল খেলতে পারবেন না হাতের কবজির চোটের কারণে। তাদের বিকল্পটা কেমন হবে?
দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই। না, মিনহাজুল সরাসরি সেভাবে না বললেও তার কথায় সেই ইঙ্গিতটি ঠিকই মিলেছে।
‘যেহেতু তামিম ও সাকিব ইনজুরিতে আছেন, সাকিব তো পারবেই না, তামিমও ইনজুরিতে আছে। এই দুইজন যে খেলতে পারবে না এটা আমরা আগে থেকেই জানি। সেই চিন্তা করেই আমরা দল সাজিয়েছি। ইনজুরি থাকলে তো কিছু করার নেই, ইনজুরি থাকলে সেই খেলোয়াড়কে আমরা পাব না। কিন’ আমরা তো একটা টেস্ট খেলুড়ে দেশ, আমাদের তো খেলোয়াড় আছে। আমাদের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট আছে, এখন তো আগের মতন নেই, এখন অনেক শক্তিশালী আমাদের কাঠামো। সেই হিসেবে যেই দলটা দিয়েছি আমরা, আপনারা দেখবেন এই সিরিজটায় আমরা ভাল করব।’
স্বাগতিক টাইগারদের বিপক্ষে দুটি টেস্ট ও তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে আগামী ১৬ অক্টোবর বাংলাদেশ সফরে আসছে জিম্বাবুয়ে। বাংলাদেশে পৌঁছে ১৯ অক্টোবর বিকেএসপিতে একদিনের একটি প্রস’তি ম্যাচে অংশ নেবে দু’দল।
এরপর ২১ অক্টোবর মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে স্বাগতিক ও সফরকারীরা। সিরিজের শেষ দুটি ওয়ানডে গড়াবে ২৪ ও ২৬ অক্টোবর চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। প্রতিটি ওয়ানডে ম্যাচই দিবা রাত্রির।
ওয়ানডে সিরিজ শেষে ৩-৭ নভেম্বর সিলেট আনন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গড়াবে প্রথম টেস্ট ম্যাচটি। আর এই ম্যাচ দিয়েই নয়োনাভিরাম স্টেডিয়ামটির টেস্ট অভিষেক হবে। দ্বিতীয় ও শেষটি অনুষ্ঠিত হবে ১১-১৫ নভেম্বর মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে।