তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবসে বিভাগীয় কমিশনার

তথ্যপ্রযুক্তি হতে পারে দারিদ্র্য বিমোচনের হাতিয়ার

‘তথ্য প্রযুক্তির বৈপ্লবিক ছোঁয়ায় ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের পথ ধরে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি আজ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হওয়ার দ্বারপ্রান্তে। উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত বিশ্বের সারিতে প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১২ ডিসেম্বরকে জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবস ঘোষণা করেন। তথ্যপ্রযুক্তির দ্বারা এখন সবকাজই করতে সক্ষম হয়েছি। তথ্য প্রযুক্তিই হতে পারে দারিদ্র্য বিমোচনের হাতিয়ার।’
গতকাল মঙ্গলবার চট্টগ্রাম এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবসে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান এসব কথা বলেন।
‘শেখ হাসিনার অবদান, ডিজিটাল হলো জীবন মান’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবস প্রথমবারের মত পালন করে চট্টগ্রাম জেলা ও বিভাগীয় প্রশাসন। এ উপলক্ষে সার্কিট হাউজ থেকে র‌্যালি ও আলোচনা সভা এবং আইসিটি কনসার্ট এর আয়োজন করা হয়।
চট্টগ্রাম প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন প্রফেসর ড. কৌশিক দে বলেন, অফিসে ই-ফাইলিং, ঘরে বসে পরীক্ষার ফলাফল জানা, জন্ম সনদ, ই-টিন নম্বর, স্কুল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন, দেশি-বিদেশি চাকুরির সব তথ্য মোবাইল ইন্টারনেটের মাধ্যমে জানতে পারি। বর্তমানে ১২ কোটি লোক মোবাইল ব্যবহার করছে। ২০২১ সালের মধ্যে ৫ কোটি লোকের কর্মসংস্থান হবে তথ্য প্রযুক্তির দ্বারা।
তিনি আরও বলেন, বেকার ছেলেরা চাকুরির প্রত্যাশা না করে আউট সোর্সিং করে টাকা আয় করছে। সব কিছুই তথ্য প্রযুক্তি দ্বারা সম্ভব হয়েছে।
সভায় আরও বক্তব্য দেন, জেলা প্রশাসক মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মো. মাসুদুল হাসান, পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা। বিজ্ঞপ্তি