গুরুত্বপূর্ণ জয় পেলো মুক্তিযোদ্ধা লাল

জয়রথ ছুটছেই চবকের

নিজস্ব ক্রীড়া প্রতিবেদক

দলের এগারো জন ব্যাটসম্যানের সাতজন আউট হলেন রানের খাতা খোলার আগে আর একজন ১ রান করে। বাকি দুইজনের একজন ইমরান ২৩ ও অপরজন ওপেনার ইলিয়াস সানি করলেন ২০। এই হচ্ছে চট্টগ্রাম আবাহনী লিমিটেডের দলগত সংগ্রহ। অতিরিক্ত থেকে ৩ রানসহ সর্বসাকুল্যে তাদের মোট রান ৪৭! হাতে ছিল আরো ৩০.৩ ওভার। মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া চক্র লাল দলের বোলার মইনুল ইসলাম ও আবদুল মোমিন- এই দুই জনই তাণ্ডব চালিয়েছেন গতকাল। প্রত্যেকে নিয়েছেন ৪টি করে উইকেট। বাকি ২টি উইকেট এসেছে সাদ্দামের ঝুলিতে।
আর জবাবে খেলতে নেমে ১২.১ ওভারে জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন ইকবাল হোসাইন (২৫*) ও আলম (২১*)। চট্টগ্রাম আবাহনীর বোলারদের সাফল্য বলতে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান আবু বক্করের উইকেটটি। সেটি নেন উত্তম সরকার।
এটি গেল জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম খেলার খবর। এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে গতকাল দিনের অপর খেলায় ৫ উইকেটে দুর্দান্ত জয় তুলে নেয় চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ (চবক)। এটি তাদের টানা পঞ্চম জয়। আর কোয়ালিটির টানা পঞ্চম হার।
জয়রথ ছুটতে থাকা বন্দরের অধিনায়ক প্রথমে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন। ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানান কোয়ালিটির ব্যাটসম্যানদের। সে আমন্ত্রণের ভালোই সাড়া দিচ্ছিলেন দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান সাব্বির ও কমল। সাব্বিরকে (২৫) যখন মুরাদ আউট করে এ জুটি ভাঙেন তখন তাদের রান ৭৭। এরপর ৮২ রানে বিদায় নেন অপর উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান কমল। যাওয়ার আগে ৬ চার ও ১ ছয়ে ৫৫ রানের ইনিংস খেলেন। তৃতীয় উইকেটে জাবেদ ও কায়সার দলকে বড় সংগ্রহের দিয়ে নিতে থাকে। ১৬১ রানে তাদের এ জুটি ভাঙেন মনিরুল। ৩৫ রান করে বিদায় নেন জাবেদ। এর ৩ রান পর কায়সারকে (৪৩) নিজের দ্বিতীয় শিকার বানান মনিরুল। এরপর মিডলঅর্ডার ও টেলএন্ডারদের ছোট ছোট জুটি দলের সংগ্রহ ২৭৩-এ নিয়ে যায়। এজন্য তারা হারায় ৯ উইকেট। তাদের মুশফিকুর ৩১ ও আরাফাত ৩০ রান যোগ করেন দলের সংগ্রহে।
বন্দরের তারেক আজিজ ৪ ও মনিরুল ২ উইকেট নেন।
জবাবে খেলতে নেমে আফতাব আহমেদের অপরাজিত ৯৪ রানের ইনিংসের সুবাদে জয় নিশ্চিত করে বন্দর। দলীয় ৩৫ রান তুলতে দুই ব্যাটসম্যান আউট হলে তৃতীয় উইকেটে বাপ্পাকে সাথে নিয়ে সেই ধাক্কা সামলে নেন আফতাব। দলকে নিয়ে যান শত রানের ওপারে। ৫৮ রান করা বাপ্পা যখন বিদায় নেন তখন দলের সংগ্রহ ১০৫। এর ১৮ রান পর আউট হন রুবেল।
এরপর পঞ্চম উইকেটে শাহাদাতকে নিয়ে জয়ের ভিত গড়ে দেন আফতাব। ২২২ রানে শাহাদাত (৪৪) আউট হলে বাকি কাজটা রেজাউলকে নিয়ে সেড়ে ফেলেন তিনি। রেজাউল ২৪ রানে অপরাজিত ছিলেন। আর আফতাবের ৯৪ রানের ইনিংসটি ছিল ৪ ছয় ও ৮ চারে সাজানো।
আজকের খেলা
এফএমসি-ফ্রেন্ডস ক্লাব (জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম) ও চসিক একাদশ-রাইজিং স্টার (এমএ আজিজ স্টেডিয়াম)।