জেলা পর্যায়ে সেরা ফটিকছড়ি

নিজস্ব ক্রীড়া প্রতিবেদক

শুরু থেকে ‘সৌভাগ্যবান’ দলের তকমা পাওয়া ফটিকছড়ি উপজেলা জেলা পর্যায়ের শিরোপা জয় করেছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের (অনূর্ধ্ব-১৭) চট্টগ্রাম জেলা পর্যায়ে ফাইনালে গতকালও ভাগ্য তাদের পক্ষে ছিল। প্রতিপক্ষ বোয়ালখালী উপজেলা ২-০ গোলে এগিয়ে থেকেও শিরোপার স্বাদ নিতে ব্যর্থ হয়। বিকেলে শহীদ প্রকৌশলী সামসুজ্জামান বন্দর স্টেডিয়ামে ফাইনালে ফটিকছড়ি টাইব্রেকারে ৪-৩ গোলে বোয়ালখালী উপজেলাকে পরাজিত করে। নির্ধারিত ও অতিরিক্ত সময় প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এ খেলা ২-২ গোলে ড্র ছিল। খেলার ৫ম মিনিটে কর্নার থেকে আসা বলে মাথা লাগিয়ে শাহরিয়ার শাওন বল জালে পাঠালে বোয়ালখালী এগিয়ে যায় (১-০)।

পিছিয়ে থেকে গোলের জন্য গুছালো আক্রমণে বিপক্ষ রক্ষণভাগকে পরাস্ত করলেও ফটিকছড়ির সমানে বারবার প্রাচীর হয়ে দাঁড়ান কিপার আবু বকর সিদ্দিক। এক গোল নিয়ে প্রথমার্ধ শেষ হয়। দ্বিতীয়ার্ধের ৫ মিনিটে আবারো শাওন জালের ঠিকানা খুঁজে পেলে উল্লাসে মেতে থাকে বোয়ালখালীর খেলোয়াড়সহ সকলে। বদলি রিমনের বাড়ানো সেন্টারে দর্শনীয় শটে শাওন বল জালে পৌঁছে দেন (২-০)। কিন’ তাদের এ আনন্দ থমকে যাবে-এমনটা হয়তো কেউ ভাবেনি। শেষ পর্যন্ত সবাইকে চমকে দিয়ে দুই গোল পরিশোধ করে স্পট কিকে জয় তুলে নিতে সক্ষম হন ইফতেখারউদ্দিন লাভলুর শির্ষ্যরা। এ অর্ধের ১৮ মিনিটে দূর্দান্ত হেডে ফটিকছড়ির সজিব ত্রিপুরা গোল করলে ব্যবধান ২-১ হয়।

এরপর ইনচুরি সময়ের শেষ ভাগে কপাল পোড়ে বোয়ালখালীর। বামপ্রান্তের কর্নার এলাকা থেকে ফটিকছড়ির অধিনায়ক মাসুদের লম্বা থ্রো গোলমুখে বিপক্ষের একজন ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে জাল স্পর্শ করে (২-২)। অতিরিক্ত ১০ মিনিটেও আর গোল হয়নি। টাইব্রেকারে ফটিকছড়ির মাসুদ, প্রিতম, সাইফুল্লাহ ও নিশান বড়-য়া এবং বোয়ালখালীর শাহরিয়ার শাওন, মেহেদী হাসান ও সানি গোল করলেও আসিকুলের শট কিপার ঝন্টু প্রতিহত করেন।

৫ম শট আবদুল্লাহ হাসান বাইরে পাঠান। ফাইনাল সেরা ও টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার লাভ করেন বোয়ালখালীর শাওন। জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে পুরস্কার বিতরণ করেন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোসলেমউদ্দিন আহমেদ, ফটিকছড়ির ইউএনও দীপক কুমার রায়, বোয়ালখালীর ইউএনও আছিয়া খাতুন, জেলা ক্রীড়া সংস’ার যুগ্ম সম্পাদক মো. আমিনুল ইসলাম, ফুটবল কমিটির সম্পাদক মো. ইউসুফ, জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি এস এম শহীদুল ইসলাম, জেলা ক্রীড়া সংস’ার নির্বাহী সদস্য জসিমউদ্দিন আহমেদ, টুর্নামেন্টের সদস্য সচিব মনোরঞ্জন দে, বন্দর ক্রীড়া কমপ্লেক্সের পরিচালক গোলাম মর্তুজাসহ জেলা প্রশাসন ও ক্রীড়া সংস’ার কর্মকর্তারা উপসি’ত ছিলেন। ফাইনাল খেলা পরিচালনা করেন ফরহাদ হোসেন। সহকারী ছিলেন বিশ্বজিত সাহা ও ধীমান বড়-য়া। আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে একই ভেন্যুতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের বিভাগীয় পর্যায়ের খেলা নকআউট ভিত্তিতে শুরু হবে।