জাপান-সেনেগালের এগিয়ে যাওয়ার লড়াই আজ

দেবজ্যোতি চক্রবর্তী

গ্রুপ ‘এইচ’ থেকে জাপান ও সেনেগালের চেয়ে কলম্বিয়া আর পোল্যান্ডকে এগিয়ে রেখেছিল সবাই। কিন’ প্রথম খেলায় জয় আদায় করে পয়েন্ট তালিকায় জাপান ও সেনেগাল যথাক্রমে প্রথম ও দ্বিতীয়তে রয়েছে। আর কলম্বিয়া-পোল্যান্ডের আজকের খেলায় যে হারবে তাকে বিদায় নিতে হবে।
একাটেরিনবার্গে আজ জাপান-সেনেগালের মধ্য থেকে যে দল জিতবে তারা এগিয়ে যাবেন দ্বিতীয় রাউন্ডের পথে। এমনিতেই নিজেদের প্রথম খেলায় জিতে অনেক নির্ভার আছে দুই দল। তাই আজকের খেলায় চাপমুক্ত থাকবে তারা।
২০০২ সালের পর বিশ্বকাপে জাপান টানা দুই জয় আদায় করতে পারেনি। গোল করার দায়িত্বে থাকা ওসাকো ও কাগাওয়াই হচ্ছে জাপানের মূল ভরসা। গত ম্যাচে গোল পেয়েছেন তারা দুইজন। গত ম্যাচে কলম্বিয়া ভালোই খেলেছিল তাদের তারকা রদ্রিগেসকে ছাড়া। তবে সাদিও মানে-ডিওফদের আটকাতে হলে শোজি-নাগাটোমো-ইয়োশিনডাদের প্রাচীর হয়ে দাঁড়াতে হবে। আজ বিশেষ নজর রাখতে হবে স্ট্রাইকার ওকাজাকির ওপর। গত ম্যাচে গোল না পেলেও আজ হয়তো তিনি দলের জয়ে বড় ভূমিকা রাখতে পারেন। মাঝমাঠের তারকা হোন্ডাকে আক্রমণ তৈরি করে দিতে হবে। তিনি অবশ্য গোল করাতে এবং করতে দুটোই পারেন।
২০০২ বিশ্বকাপে এসে চমক দেয়া সেনেগাল এবারের আসরেও আরেকটি চমক দিয়েছে দুর্দান্ত জয় দিয়ে। আজকের মিশনটি তাদের জন্যও এগিয়ে যাওয়ার। গত ম্যাচে পোল্যান্ডের ডিফেন্ডারের ভুলে প্রথম গোলটি তারা পেয়েছিল। আর পরেরটি করেছিলেন নাইনাং। তবে তার সাথে আজকের দিনটা হয়তো নিজেদের করে নেবেন দলনেতা সাদিও মানে-ডিওফের মতো তারকারা। মানেকে ডান প্রান্ত ও ইসমাইলাকে বাম প্রান্ত থেকে আক্রমণের পরিকল্পনা নিতে হবে।
রক্ষণভাগে থাকা সানে-ওয়াগো-সাবালিরা বেশ ভালোই দক্ষতা দেখিয়েছে গত ম্যাচে। আজকেও তাদের ওপর আস’া রাখা রাখতে পারবেন কোচ।
কোন দল দ্বিতীয় রাউন্ডের পথ মসৃণ করবে সেটাই এখন দেখার বিষয়।
বিশ্বকাপ পরিসংখ্যান
জাপান ১৮ ম্যাচ খেলে জিতেছে ৫টি, হেরেছে ৯টি ও ড্র করেছে ৪টি।
সেনেগাল খেলেছে ৬ ম্যাচ। যার ৩টি জিতেছে, ১টি হেরেছে ও ২টি ড্র করেছে।
মুখোমুখি
তিনবারের সাক্ষাতে জাপানের কোনো জয় নেই। সেনেগাল জিতেছে ২টি, বাকি ম্যাচটি ড্র হয়েছে।
বিশ্বকাপে এটি দুই দলের প্রথম সাক্ষাত।