জমে উঠেছে বাণিজ্য মেলা

রম্নমন ভট্টাচার্য

শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিনে পলোগ্রাউন্ড মাঠে আনত্মর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় বিভিন্ন বয়সী মানুষ ভিড় জমিয়েছেন। অনেকে পরিবার-পরিজন, বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন নিয়ে মেলায় এসেছেন। দর্শনার্থীদের কেউ মেলায় ঘুরে-ফিরে দেখছেন। আবার অনেকেই পছন্দের কেনাকাটা করেছেন। মেলায় পুরম্নষের চেয়ে নারীদের উপসি’তি ছিল চোখে পড়ার মত। সকাল থেকে দর্শনার্থীরা আসলেও দুপুরের পর থেকে বাড়তে থাকে ভিড়।
সরেজমিন দেখা গেছে, মেলা ঘিরে প্যাভিলিয়নগুলো সাজানো হয়েছে নানারূপে। ক্রেতা আকর্ষণে বিভিন্ন স্টলে দেওয়া হয়েছে পণ্যের দামে বিশেষ ছাড় ও আকর্ষণীয় পুরস্কার। আর এ সুযোগ লুফে নিতে ক্রেতাদের ভিড় দেখা গেছে স্টলগুলোতে। তবে নারীদের বেশি ভিড় ছিল কসমেটিকস, কাপড়, জুতা ও অ্যালুমিনিয়ামের দোকানে। এছাড়া ভারত, কোরিয়া ও ইরানি স্টলগুলোতে ভিড় কম ছিল না। মেলায় আগত দর্শনার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে পুলিশ সদস্যরা ছিলেন সরব ভূমিকায়।
হালিশহর থেকে আসা গৃহিনী তামান্না রহমান বলেন, ‘কসমেটিক, কাপড় কিনতে প্রতিবছরই মেলাতে আসি। বিশেষ করে বাইরের দেশের কসমেটিকসগুলো সংগ্রহ করি। দাম একটু বেশি মনে হলেও মানটা ভালো।’ আরো কয়েকবার আসার ইচ্ছা কথা জানান তিনি।
বিভিন্ন স্টলের

দোকানিরা বলছেন, শুক্রবার ছুটির দিনের কারণে মেলায় আগত ক্রেতা-দর্শনার্থীর সংখ্যা বাড়ায় বেচাকেনাও বেড়েছে বিভিন্ন স্টলে। আর এর মাধ্যমে জমে উঠছে ২৭তম আনত্মর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। তবে সামনের দিনগুলোতে কেনাবেচা আরো জমে উঠবে বলে আশা করছেন তারা।
মেলায় অংশ নেওয়া একাধিক কোম্পানির বিক্রয়কর্মীরা জানান, মেলা উপলড়্গে বিভিন্ন পণ্যে বিশেষ ছাড় দেওয়া হচ্ছে। কুপন ও পুরস্কারের ব্যবস’া রাখা হয়েছে। প্যাভিলিয়নে গ্রাহকরা আসছেন, তারা পণ্য দেখছেন, অনেকে কিছু কিনছেন।
মুরাদপুর থেকে মেলায় আসা ব্যবসায়ী সাদমান চৌধুরী বলেন, ‘বছরে একবার আয়োজন হয় এ মেলা। এ কারণে বিভিন্ন কোম্পানিগুলো মেলাকে ঘিরে নিত্য নতুন ডিজাইনের পণ্য নিয়ে ক্রেতাদের সামনে হাজির হয়। যেগুলো বছরের অন্য সময় পাওয়া যায় না। তাই পছন্দনীয় জিনিসগুলো কিনে নিয়ে যাব বলে মেলায় আসা।’
এবারের মেলায় ভারত, কোরিয়ান ইরান মেলায় অংশ নিয়েছে। মেলায় রয়েছে ২২টি প্রিমিয়ার গোল্ড প্যাভিলিয়ন, ২টি প্যাভিলিয়ন, ১৮০টি প্রিমিয়ার মেগা স্টল, ১০টি প্রিমিয়ার গোল্ড স্টল, ১০টি প্রিমিয়ার স্টল, ৬টি স্ট্যান্ডার্ড স্টল ও ২টি রেস্টুরেন্ট এবং কান্ট্রি পার্টনার হিসেবে রয়েছে থাইল্যান্ড।
গত ৬ মার্চ মেলার উদ্বোধন করেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশী। তবে ১৩ মার্চ থেকে শুরম্ন হয় টিকিট বিক্রি। মাসব্যাপী এই মেলা প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যনত্ম ক্রেতা-দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে। টিকিট মূল্য রাখা হয়েছে ১২টাকা।
পিএইচপি অটোমোবাইলস মেগা স্টল উদ্বোধন
এদিকে, বাণিজ্য মেলায় গতকাল শুক্রবার বিকালে পিএইচসি অটোমোবাইলস মেগা স্টল উদ্বোধন করা হয়েছে। ফিতা কেটে উদ্বোধন করেন পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান শিল্পপতি সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। এসময় উপসি’ত ছিলেন পিএইচপি অটোমোবাইলসের ব্যবস’াপনা পরিচালক মোহাম্মদ আকতার পারভেজ, হেড অফ সেলস অ্যান্ড মার্কেন্টিং এস এম শাহিনুর রহমান ও হেড অফ সেলস (মোটরসাইকেল) মেজবাহ উদ্দীন আতিক প্রমুখ।
মেলা উপলড়্গে পিএইচপির অটোমোবাইলসের অত্যাধুুনিক সুবিধা সম্বলিত ৩ ধরনের কার ও মোটরসাইকেলে নগদ ক্রয়ে দেওয়া হচ্ছে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা থেকে সর্বনিম্ন ৯ হাজার টাকা পর্যনত্ম ছাড়। এছাড়া সুদমুক্ত কিসিত্মতে গাড়ি ক্রয়ের সুবিধা রাখা হয়েছে ক্রেতাদের জন্য। উদ্বোধনের পরপরই দর্শনার্থীদের উপচেপড়া ভিড় লড়্গ করা গেছে স্টলটিতে।