অমর একুশে বইমেলা

ছয় দিনে দুই কোটির টাকার বই বিক্রি

নিজস্ব প্রতিবেদক

অমর একুশে বইমেলা জমে উঠেছে। সম্মিলিত বইমেলা হচ্ছে নগরে এবারই প্রথম। ফলে লোক সমাগমের সাথে সাথে আশানুরূপ বই করতে পেরে প্রকাশকদের আনন্দের কমতি নেই। গতকাল ৬ষ্ঠ দিন পর্যন্ত বই বিক্রি হয়েছে দুই কোটি টাকার কাছাকাছি- এমনটাই জানালেন আয়োজকরা।
নগরীর এম এ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন সিজেকেএস জিমনেশিয়াম চত্বরে অমর একুশে এই বইমেলায় লেখক, কবি, সাহিত্যিক ও দর্শকদের মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে। ঢাকা ও চট্টগ্রামের সৃজনশীল প্রকাশকদের অংশগ্রহণে ছিল অমর একুশের এই বই মেলা।
মূল গেইটে ঢুকতে চোখে পড়ে বিশিষ্টজনদের উদ্ধৃতি সম্বলিত ফেস্টুন। এতে স’ান পেয়েছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলাম, জসীমউদ্দীন, মাইকেল মধুসূদন দত্ত, আবদুল গাফফার চৌধুরী, প্রমথ চৌধুরী, বেগম সুফিয়া কামাল, আবদুল্লাহ আবু সাঈদসহ আরো অনেকের উদ্ধৃতি ।
বইমেলা উদযাপন পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মহিউদ্দিন শাহ আলম নিপু জানান, বইমেলায় বইয়ের স্টল রয়েছে ১১০টি। এর মধ্যে চট্টগ্রামের ৫০টি, ঢাকার ৬০ টি । মেলায় ফ্রি ওয়াই-ফাই ব্যবহারের সুবিধা যুক্ত করা হয়েছে। নিরাপত্তার জন্য সিসি ক্যামেরার আওতায় রাখা হয়েছে পুরো মেলা। হেলথ ও নিরাপত্তা ক্যাম্পও রয়েছে ।
বইমেলায় আগত সাংবাদিক মুস্তফা নঈম অভিযোগের সুরে বলেন, সম্মিলিতভাবে চট্টগ্রামে এত বড় একটা মেলা অথচ বাংলা একাডেমির কোন স্টল নেই। বাংলা একাডেমির উচিত মেলার মাধ্যমে নতুন নতুন পাঠক সৃষ্টি করা। তাদের উচিত ঢাকার বাইরে চট্টগ্রামসহ সকল বিভাগীয় শহরে বইমেলার আয়োজন করা।
চট্টগ্রাম বইমেলা উদযাপন পরিষদের যুগ্ম সচিব জামাল উদ্দিন জানান, মেলার শুরু থেকে গতকাল (শুক্রবার) পর্যন্ত প্রায় দুই কোটি টাকার বই বিক্রি হয়েছে! তিনি বলেন, অতীতের যেকোনো সময়ের চাইতে ক্রেতা-দর্শক অনেক বেশি। এবার মেলায় ঢাকা ও চট্টগ্রামের প্রকাশকদের ৫৫০টি নতুন বই এ পর্যন্ত মেলায় এসেছে। আরো নতুন বই আসবে।
অক্ষর বৃত্ত প্রকাশনীর প্রকাশক আনিস সুজন বলেন, এবারের জমজমাট এই মেলার একটাই কারণ, সম্মিলিত অংশগ্রহণ। ফলে স’ানীয় লেখক-প্রকাশকরা আশাবাদী হয়ে উঠছেন। সামনের বছর এ বইমেলা ঢাকার বইমেলার মতো আরো জমে উঠবে।
মেলায় বই কিনছিলেন চট্টগ্রাম কলেজের শিক্ষার্থী অনুপ্রভা। তিনি সুপ্রভাতকে বলেন, বইমেলা বাঙালির প্রাণের মেলা। ভালোবাসা আর প্রাণের টানে বইমেলায় ছুটে আসি পছন্দসই বই কিনতে। আমি মূলত হুমায়ুন স্যারের ভক্ত। তার বই-ই বেশি পড়ি। তবে নতুন লেখকদের অনেক বই এসেছে, সেগুলো দেখছি। ভালো লাগলে কিনে নেব।