অমর একুশে বইমেলার ৬ষ্ঠ দিন

ছুটির দিনে উপচেপড়া ভিড়

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাপ্তাহিক ছুটির দিন থাকায় গতকাল অমর একুশে বইমেলায় ছিল বইপ্রেমীদের উপচেপড়া ভিড়। সকাল থেকেই মেলা প্রাঙ্গণে বাড়তে থাকে ভিড়, দুপুর গড়িয়ে বিকেল হতেই তা রূপ নেয় জনসমুদ্রে। আর সন্ধ্যায় মেলা প্রাঙ্গণজুড়ে যেন তিল ধারণের ঠাঁই নেই।
ছুটির দিন হওয়াতে সকাল ১০টায় মেলার প্রবেশ দ্বার খুলে দেওয়া হয়। ওই সময়টা ছিল শুধু শিশু-কিশোরদের জন্য। মেলা প্রাঙ্গনজুড়ে দাপিয়ে বেড়িয়েছে তারা। তবে দুপুর পার হতেই ছোটদের পাশাপাশি তরুণ-তরুণী, যুগলসহ সব বয়সী নারী পুরুষের ভিড় বাড়তে থাকে। সন্ধ্যার আগে আগেই মেলায় ঠাঁই নাই ঠাঁই নাই অবস’া।
আগ্রাবাদ থেকে বাবা-মায়ের সঙ্গে শিশু প্রহরে মেলায় এসেছিল জাইমা। চান্দগাঁও থেকে মায়ের সঙ্গে মেলায় আসে সামা। ক্লাস ওয়ানে পড়ে সে। ছবি আঁকার বই কিনে সামা বলে, কার্টুনের বই আর ছবি আঁকার বই আমার সবচেয়ে ভালো লাগে। আমি আঁকতে ভালোবাসি।
স্টলগুলোতে ছিল শিশু ও অভিভাবকদের ভিড়। অক্ষর বৃত্ত প্রকাশনার সত্বাধিকারী আনিস সুজন বলেন, এবারে আমরা ৩৫টি শিশুতোষ বই প্রকাশ করেছি। ছড়ার ও রঙিন ছবির বই বেশি বিক্রি হচ্ছে। শিশুরা গল্পের রঙিন বই অনেক পছন্দ করে। এছাড়া যে গল্পে মজা আছে, তারা সেটা পছন্দ করে।
আন্দরকিল্লা থেকে মেলায় প্রথমবারের মতো স্ত্রী বিবিকা দেবকে সাথে নিয়ে এসেছেন চাকরিজীবী বিপুল দেব। তিনি জানান, সরকারি ছুটি থাকায় দুজনে মেলায় এসেছি। এবারের মেলা এক সাথে বড় পরিসরে হওয়ায় বেশ ভালো লাগছে।
তিনি জানান, মেলায় এসে কামরুল হাসান বাদলের কবিতার বই কিনেছি। মেলায় কবিকে পেয়ে অটোগ্রাফ নিলাম সাথে ছবিও তুললাম, বেশ ভালই লাগল। এছাড়া সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের একটি গল্পের বই কিনেছি। আরো ঘুরব ভালো লাগলে আরো দু’একটা বই কিনব।
মেলায় আড্ডা দিতে দেখা গেছে কবি-লেখকদের। তাদের মধ্যে ছিলেন কবি জিল্লুর রহমান, সেলিনা শেলী, শাহিদ আনোয়ার, ভাগ্যধন বড়-য়া, খালেদ হামিদী, কামরুল হাসান বাদল, আখতার হোসেন, ফারহানা আনন্দময়ী, শান’নু বিশ্বাস, শুভ্রা বিশ্বাস ও হাফিজ রশিদ খান। তরুণ লেখকদের মধ্যে ছিলেন রিমঝিম আহমেদ, আলী প্রয়াস, শেখর দেব, স্বরূপ সুপান’, ফুয়াদ হাসান, সাগর শর্মা, নিলয় রফিক, আলাউদ্দিন খোকন, শেখ আনোয়ার হোসেন রানা প্রমুখ।
এবারের মেলায় ৬ষ্ঠ দিনের মতো আসা প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী মাইমুনা জানান, গত পাঁচ দিনের চেয়ে আজ বেশি ভালো লাগছে। কারণ প্রতি দিনই বইপ্রেমীদের ভিড় বাড়ছে।
এদিকে মেলায় গতকাল বারোয়ারি বিতর্ক, প্ল্যানচেট বিতর্ক, সংসদীয় বিতর্ক নিয়ে ছিল বির্তক উৎসব। এ উৎসব উদ্বোধন করেন নাগরিক টিভির প্রধান পরিচালনা কর্মকর্তা আবদুন নূর তুষার। প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন একুশে পদকপ্রাপ্ত কবি ও সাংবাদিক আবুল মোমেন।
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়ুয়ার সভাপতিত্ব অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম বাবু, দৃষ্টি চট্টগ্রামের সভাপতি মাসুদ বকুল ও সহ-সভাপতি সাইফ চৌধুরী।
মেলায় গতকাল মোড়ক উন্মেচন করা হয় লেখক রাজীব বিশ্বাসের ‘তুলসীতলা’ গ্রন’টি এটি প্রকাশিত হয় পেন্সিল প্রকাশনা থেকে।
অনেকে পরিবারসহ মেলায় এসেছেন। মেলায় বেড়েছে বিক্রি। প্রকাশকদের মুখে সারাক্ষণই তাই হাসি।