চসিকের সাধারণ সভায় মেয়র ১৬৫ কোটি টাকার চার প্রকল্পের কাজ শীঘ্রই

বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ মিউনিসিপ্যাল ডেভেলপমেন্ট ফান্ড (বিএমডিএফ) এর অর্থায়নে নগরীতে ৪টি প্রকল্পের কাজ শীঘ্রই শুরু হবে। প্রকল্পগুলোর মধ্যে বাকলিয়ায় আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত বিশ্ব মানের স্পোর্টস কমপ্লেক্স, হালিশহরস’ ফইল্যাতলী বাজারে ১০ তলা বিশিষ্ট অত্যাধুনিক কিচেন মার্কেট নির্মাণ, ফিরিঙ্গি বাজার এলাকায় বহুতল বিশিষ্ট কিচেন মার্কেট এবং ২৭ নম্বর দক্ষিণ আগ্রাবাদ ওয়ার্ড অফিসের জায়গায় বহুমুখী বহুতল মার্কেট নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এই চারটি প্রকল্প বাস্তবায়নে বিএমডিএফ ১৫০ কোটি টাকা অর্থ সহযোগিতা প্রদান করেছে। ১৬৫ কোটি টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের অবশিষ্ট অর্থ ১৫ শতাংশ হারে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন বহন করবে। আগামী ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর নাগাদ প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের মেয়াদ নির্ধারিত রয়েছে। প্রকল্প বাস্তবায়নে ইতোমধ্যে পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যেই এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন কাজ শুরু করা হবে। এ চারটি প্রকল্প সমূহের মধ্যে সুপার সপ, কমিউনিটি সেন্টার, কনফারেন্স হল, ট্রেনিং রুম, ডে-কেয়ার সেন্টার, বিউটি পার্লার, খেলার মাঠ, গ্রাউন্ড স্ট্যান্ড, টিকেট বুথ, ওয়াকওয়ে, গ্যালারি ইত্যাদি সুযোগ সুবিধা রয়েছে।

গতকাল দুপুরে চসিকের কে বি আবদুচ ছাত্তার মিলনায়তনে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ৫ম নির্বাচিত পরিষদের ৩৬তম সাধারণ সভার সভাপতি সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন এ তথ্য প্রকাশ করেন। সভায় অর্থ ও সংস’াপন, বর্জ্য ব্যবস’াপনা, শিক্ষা, স্বাস’্য, পরিবার পরিকল্পনা এবং স্বাস’্যরক্ষা, নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন, হিসাব নিরীক্ষা ও রক্ষণাবেক্ষণ, নগর অবকাঠামো নির্মাণ ও সংরক্ষণ, পানি ও বিদ্যুৎ, সমাজকল্যাণ ও কমিউনিটি সেন্টার, পরিবেশ উন্নয়ন, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি, যোগাযোগ, দুর্যোগ ব্যবস’াপনা, আইনশৃঙ্খলা এবং পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ বিষয়ক স’ায়ী কমিটির চেয়ারম্যানবৃন্দের স্ব স্ব স্ট্যান্ডিং কমিটির কার্যবিবরণী উপস’াপন করা হয়।

সভায় নির্বাচিত পরিষদের ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর, অফিসিয়াল কাউন্সিলরসহ সিটি করপোরেশনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও বিভাগীয় প্রধানগণ উপসি’ত ছিলেন। সভা পরিচালনা করেন চসিক ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মুহম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান।

সভাপতির বক্তব্যে সিটি মেয়র বলেন, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী আসন্ন কোরবানির ঈদের বর্জ্য ব্যবস’াপনা নিয়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন ব্যাপক কর্মপরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। ঈদের দিন বিকাল ৪ টার মধ্যে পুরো নগরীতে কোরবানির দিন জবাইকৃত পশুর বর্জ্য অপসারণ এবং ঈদের পরের দিন শেষ রাত পর্যন্ত বর্জ্য অপসারণের লক্ষ্যে ৪১টি ওয়ার্ডকে উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব, পশ্চিম এ ৪টি জোনে ভাগ করা হয়েছে। প্রত্যেক জোন তদারকির জন্য একটি করে ‘উপ-কমিটি’ গঠন করা হয়েছে। প্রতি ওয়ার্ডে চসিক’র ১৪ জন করে পরিচ্ছন্ন কর্মী সার্বিক দায়িত্ব পালনে নিয়োজিত থাকবে। বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম নিশ্চিতকল্পে কোরবানি ঈদের দিন সকাল ৯টার মধ্যে দায়িত্বে নিয়োজিত স’ায়ী ও অস’ায়ী পরিচ্ছন্ন কর্মীদের স্ব স্ব ওয়ার্ডে উপসি’ত থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ সমস্ত কার্যক্রম ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলররা তদারকি করবেন। তিনি নগরীর যানজট সমস্যা নিরসনের লক্ষ্যে যত্রতত্র পার্কিং এবং পরিবহন সেক্টরে শৃঙ্খলা আনায়ন, বাস, সিএনজি, অটোরিক্সা, রিক্সা মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দের সাথে পৃথক পৃথক বৈঠক অনুষ্ঠানের কথা সভায় উল্লেখ করেন।