চসিকের বৈশাখী উৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৪২৫ বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে শনিবার সকাল থেকে নগরীর বহদ্দারহাটের স্বাধীনতা কমপ্লেক্সে এক ব্যতিক্রমধর্মী বৈশাখী মেলা ও লোকজ উৎসবের আয়োজন করে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন। এ উৎসব মেয়র, কাউন্সিলর, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর, চসিকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পারিবারিক মিলন মেলায় পরিণত হয়।
প্রধান অতিথি হিসেবে শুরুতে মঙ্গল প্রদীপ জ্বালিয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন পরিচালিত স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থী এবং শিক্ষক কর্মচারীরা লোকজ সংগীত, ভাওয়াইয়া, আবৃত্তি, গান ও নৃত্য পরিবেশন করেন। প্রায় ১০ হাজার দর্শনার্থী বেশাখী মেলা ও লোকজ উৎসব উপভোগ করেন। দর্শনার্থীদের উপসি’তিতে চসিকের এ বৈশাখী উৎসবে দিনভর মুখরিত ছিল স্বাধীনতা কমপ্লেক্স। বৈশাখী মেলা ও লোকজ উৎসবে সভাপতিত্ব করেন মেলা আয়োজন কমিটির আহ্বায়ক ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক স’ায়ী কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর মো. সলিম উল্লাহ বাচ্চু। এতে প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী ও চসিক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা বক্তব্য রাখেন।
উৎসবের উদ্বোধনকালে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘বাঙালির গৌরবের উৎসব পহেলা বৈশাখ। এ উৎসব বাঙালিকে দেয় সুন্দর আগামীর নতুন প্রেরণা। অপশক্তিকে রুখে দেয়ার সাহসও পায় বাঙালি এ উৎসব থেকে।’
চসিকের পারিবারিক এ আয়োজনে অংশগ্রহণকারী সকলকে প্রতিষ্ঠানের স্বার্থে দায়িত্ব পালন করে নিজেদের মেধা ও দক্ষতার পরিচয় দেয়ার পরামর্শ দেন মেয়র।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, ‘যতদিন মেয়রের দায়িত্বে থাকব ততদিন সেবা দিয়ে নগরবাসীর কল্যাণে নিয়োজিত থাকব। বাধা বিপত্তি অতিক্রম করেই নাগরিক সেবা নিশ্চিত করা হবে।’
মেয়র তাঁর দায়িত্ব পালনকালীন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঐকান্তিক সহযোগিতা কামনা করেন। নতুন বছরে শপথ নিয়ে নাগরিক সেবার আরো উৎকর্ষ সাধন করার জন্য তিনি সকলের প্রতি আহ্বান জানান।