কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ

চবিতে ৯ কোর্সের ৬০০ উত্তরপত্র চুরি

চবি সংবাদদাতা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান ফটক ও সভাপতির কড়্গের তালা ভেঙে ৯টি কোর্সের প্রায় ৬০০ উত্তরপত্র চুরি করেছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় বেশ কিছু উত্তরপত্র পুড়িয়ে ফেলেছে তারা। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে।
এদিকে এ ঘটনায় জীববিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মাহবুবুর রহমানকে প্রধান ও সহকারী প্রক্টর লিটন মিত্রকে সদস্য এবং আনত্মর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক হেলাল উদ্দিন আহম্মদকে সদস্য সচিব করে তিন সদস্যের একটি তদনত্ম কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।
বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সকাল সাড়ে ৮টায় বিভাগের অফিস রম্নম, সভাপতির রম্নম এবং স্টোর রম্নমের তিনটি তালা কাটা অবস’ায় দেখতে পান বিভাগের কর্মচারীরা। বিষয়টি সন্দেহজনক মনে হলে স্টোর রম্নমে ঢুকেন তারা। সেখানে ৯টি কোর্সের ১১ ব্যান্ডেল পরীড়্গার উত্তরপত্র দেখতে না পেয়ে বিভাগের সভাপতিকে জানান তারা। পরবর্তীতে বিভাগের সভাপতি, ডিন ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে বিষয়টি অবহিত করলে তারা ঘটনাস’ল পরিদর্শন করেন। এ সময় কর্তৃপড়্গ স্টোর রম্নমে থাকা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করলেও রাত ১২টার পরের কোনো ফুটেজ পাওয়া যায়নি। পরে ফ্যাকাল্টির পাশের জঙ্গলে পরিত্যক্ত অবস’ায় তৃতীয় সেমিস্টারের কিছু খাতার ব্যান্ডেল পাওয়া যায়। যা গত মঙ্গলবার ১৫ মে অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে দাবি করছেন বিভাগের সংশিস্নষ্টরা।
কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. অছিয়র রহমান বলেন, ‘সকালে বিভাগের কর্মচারীরা অফিসে এসে তিনটি রম্নমের তালা কাটা অবস’ায় দেখতে পান। বিষয়টি তাৎড়্গণিক ডিন ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে অবহিত করি। সকালে বিভাগে এসে জানতে পারি বিভিন্ন কোর্সের পরীড়্গার উত্তরপত্র চুরি হয়েছে। এবং অনেকগুলো উত্তরপত্র পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে।’
প্রাথমিকভাবে কাউকে সন্দেহ করা হচ্ছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তদনত্ম কমিটি গঠন করেছে। তাদের প্রতিবেদন ছাড়া কিছু বলা যাচ্ছে না।’
সহকারী প্রক্টর লিটন মিত্র বলেন, ‘উক্ত ঘটনায় সুষ্ঠু তদনত্ম করে দোষীদের চিহ্নিত করতে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তদনত্ম প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।’