চাঁদা না দেওয়ার জের!

চবিতে দোকানের কর্মচারীকে ছাত্রলীগ নেতার মারধর

চবি সংবাদদাতা

চাঁদা না দেওয়ায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) এক মুদি দোকানের কর্মচারীকে মারধর করেছে শাখা ছাত্রলীগের এক নেতা। গতকাল শনিবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় শাহ আমানত হলের সামনে মা-বাবা স্টোরে এ ঘটনা ঘটে। এসময় ওই ছাত্রলীগ নেতা দোকানে ভাঙচুর ও মালামাল লুট করার ও হুমকি দেয় বলে অভিযোগ করেছেন দোকানটির মালিক।
অভিযুক্ত নাজিম উদ্দীন শাখা ছাত্রলীগের বগিভিত্তিক গ্রুপ বাংলার মুখের নেতা ও সংগঠনটির বিলুপ্ত কমিটির বহিষ্কৃত সহ-সভাপতি বলে জানা যায়। মারধরের শিকার মা-বাবা স্টোরের কর্মচারী আব্দুর রহিম। দোকানটির মালিক বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আক্তার হোসেন।
মারধরের শিকার আব্দুর রহিম জানান, ‘দুপুর তিনটার দিকে ছাত্রলীগ নেতা নাজিম উদ্দিন দোকানে এসে পাঁচ হাজার টাকার চাঁদা দাবি করেন। আমি দোকানের কর্মচারী উল্লেখ করে চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তিনি আমার মোবাইল কেড়ে নেন। এক পর্যায়ে তিনি আমাকে বেধড়ক মারধর শুরু করেন। আমি তাকে মালিকের সাথে যোগাযোগ করতে বলি। তিনি মালিককে কল দিয়ে দোকান ভাঙচুর ও
হত্যার হুমকি দেন। পরে তার মোবাইল নম্বর একটি কাগজে লিখে তাতে যোগাযোগের বলে জন্য বলে চলে যান।’
এ ব্যাপার দোকানের মালিক আক্তার হোসেন বলেন, ‘আমি দোকানে না থাকাবস’ায় নাজিমউদ্দিন আমার কর্মচারীর কছে চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে দোকান ভাঙচুর এবং হত্যার হুমকি দেয়। আগামীকাল এব্যাপারে সংবাদ সম্মেলন করে আমি বিস্তারিত জানাবো।’
এদিকে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা নাজিম উদ্দীনের সাথে যোগাযোগ করা হলে মুঠোফোনে তিনি অসংলগ্ন কথাবার্তা বলেন। তিনি বলেন, ‘গরীব মেরে একটু কোটিপতি হওয়া আরকি!’ এই বলে তিনি অন্যজনকে ফোন ধরিয়ে দেন। কিন’ তার সাথে কথা বলতে চাইলে কল কেটে দেন তিনি।’
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর নিয়াজ মোর্শেদ রিপন বলেন, ‘আমরা মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগকারীদের থানায় মামলা করতে বলেছি।’