চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা

এবার কলম নিয়ে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মারামারি, আহত ২

চবি সংবাদদাতা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এবার কলম ধার নেওয়াকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় শাহজালাল হলের উত্তর পাশে দোকানের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এসময় উভয় গ্রুপের দুইজন কর্মী আহত হয়েছেন। আহতদের বিশ্ববিদ্যালয় মেডিক্যাল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। একপর্যায়ে তারা আবারো জড়ো হলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও পুলিশ এসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। এদিকে এ ঘটনার পরপরই সন্ধ্যার দিকে শাখা ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটি বিলুপ্ত করে দেয় কেন্দ্রীয় সংসদ।
মারামারিতে আহতরা হলেন- হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী দীন ইসলাম ও সংস্কৃতি ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের মাসুম। এদের মধ্যে দীন ইসলাম নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর একাংশের অনুসারি। অন্যদিকে মাসুম নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের একাংশের অনুসারি হিসেবে পরিচিত।
আহতদের বিষয়ে চবি চিকিৎসা কেন্দ্রের চিফ মেডিক্যাল অফিসার ডা. মো. আবু তৈয়ব জানান, আহতদের মধ্যে মাসুমের মাথায় ও কানের পাশে এবং দীন ইসলামের পায়ে আঘাত ছিল। তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, প্রশাসনিক ভবনের সামনে ছাত্রলীগ কর্মী দীন ইসলামের কাছে লেখার জন্য কলম চায় বিপরীত পক্ষের কর্মী তায়েফ। এসময় কলম নেই জানালে তাদের মধ্যে বাগবিতাণ্ডা হয়। একপর্যায়ে দীন ইসলামকে মারতে যায় তায়েফ। পরবর্তীতে এ খবর ছড়িয়ে পড়লে শাহজালাল হলের সামনে মারামারিতে জড়িয়ে পড়ে দুটি গ্রুপ। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের দুইজন কর্মী আহত হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।
এ বিষয়ে প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা ব্যবস্থা নেব। কেউ যদি সহনশীলতার মাত্রা অতিক্রম করতে চায়, তাদেরকে ছাড় দেওয়া হবে না।
এদিকে সন্ধ্যার দিকে দীর্ঘ সাত মাস স্থগিত থাকার পর চবি ছাত্রলীগের ২৬১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি বিলুপ্ত করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।
এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন বলেন, এক জরুরি সিদ্ধান্ত মোতাবেক কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ চবি ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করেছে। নতুন কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।
প্রসঙ্গত, তুচ্ছ ঘটনায় ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের পর গত ৪ মে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত করে দেয় কেন্দ্রীয় সংসদ। পরে সমস্যা সমাধান করতে বেশ কয়েক দফা পরিদর্শনে আসে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। ওইসময় তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন তারা। সেখান থেকে প্রতিনিধি দলের কাছে নতুন কমিটি দেয়ার দাবি উপস্থাপন করা হয়। সবশেষে গত ১৫ নভেম্বর কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল নতুন কমিটিতে দিতে ক্যাম্পাস থেকে আগ্রহীদের জীবন বৃত্তান্ত সংগ্রহ করে।
উল্লেখ্য, আলমগীর টিপুকে সভাপতি ও ফজলে রাব্বী সুজনকে সাধারণ সম্পাদক করে ২০১৫ সালের ২০ জুলাই দুই সদস্যের আংশিক কমিটি দেয়া হয়। পরবর্তীতে এক বছর পর ২৬১ জনের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্র।