চট্টগ্রাম বিভাগে ফরম কিনলেন ২২২ জন

আওয়ামী লীগের কার্যালয় সরগরম মনোনয়ন বিক্রি চলবে তিন চার দিন প্রার্থীদের সাক্ষাৎকারের তারিখ জানা যাবে কাল

নিজস্ব প্রতিবেদক গ্ধ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর আওয়ামী লীগ গতকাল থেকে মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরম্ন করেছে। ধানম-িতে দলীয় কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে ফরম বিক্রির মাধ্যমে শুরম্ন হয়েছে এই কার্যক্রম।
জানা গেছে মনোনয়ন কিনতে আগ্রহীরা বিশাল শোডাউন করছে বলে মনোনয়ন ফরম বিক্রি করতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে এ কার্যক্রমে নিয়োজিতদের। এবিষয়ে ঢাকা বিভাগের সমন্বয়কারীর দায়িত্বে থাকা ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন,‘ফরম নেয়ার সময় প্রার্থী নিজে বা তাদের কয়েকজন প্রতিনিধি দিয়ে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করতে পারে। কিন’ ফরম নেয়ার সময় বিশাল শোডাউনের কারণে অনেকে মনোনয়ন ফরম কিনতেও আসতে পারছেন না। ফরম সংগ্রহ করার সময় শোডাউন না করার জন্য তিনি মনোনয়ন প্রত্যাশীদের প্রতি অনুরোধ জানান।’
তিনি আরো বলেন, গত বছর ২৫ হাজার টাকায় মনোনয়ন ফরম বিক্রি হলেও এবার তা ৩০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। ফরম বিক্রির অর্থ দলীয় তহবিলে জমা হয়ে থাকে বলে তিনি জানান।
দাম কেন বাড়ানো হলো জানতে চাইলে তিনি বলেন, মূল্যস্ফীতির সাথে সমন্বয় করে ৩০ হাজার টাকা করা হয়েছে। এতে বাসত্মবিক অর্থে দাম বাড়েনি।
মনোননয়ন ফরম বিক্রি কার্যক্রম কতোদিন চলবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা আরো তিন থেকে চারদিন ফরম বিক্রি কার্যক্রম অব্যাহত রাখব।
প্রার্থীদের সাড়্গাৎকার কবে থেকে নেয়া হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘শনিবার পার্লামেন্টারি কমিটির মিটিং রয়েছে। সেই মিটিংয়ে সাড়্গাৎকারের তারিখ নির্ধারিত হবে।’
চট্টগ্রাম বিভাগের বিভিন্ন সংসদীয় আসন থেকে গতকাল কতোজন মনোনয়ন ফরম কিনেছেন জানতে চাইলে ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, প্রথম দিনে ২২২টি ফরম বিক্রি হয়েছে।
এদিকে নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ২৩ ডিসেম্বর নির্বাচনের জন্য ১৯ নভেম্বরের মধ্যে মনোনয়ন ফরম রিটার্নিং অফিসার বা সহকারী রিটার্নিং অফিসারের কাছে জমা
দেয়া যাবে। সেই হিসেবে ১৯ নভেম্বরের আগেই নির্বাচন কমিশন অফিস থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করতে হবে। এবিষয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনে মনোনয়ন ফরম জমা দেয়ার সময় দলীয় মনোনয়নপত্রের সম্মতিপত্র লাগবে। যিনি দলীয় মনোনয়নপত্র পাবেন তিনি ওই সংসদীয় আসনের দলীয় প্রার্থী হিসেবে বিবেচিত হবেন।’