চট্টগ্রাম-নাজিরহাট লাইনে ৮ জোড়া ট্রেন ও ডাবল লাইন চালু করুন

মুহাম্মদ শওকত হোসাইন চৌধুরী, শেখ মো. হানিফ ইকবাল

আমরা হাটহাজারী, ফটিকছড়ি, রাউজান অঞ্চলের রেলওয়ে সেবাগ্রহণকারী সুবিধা বঞ্চিত এক বিরাট জনগোষ্ঠি। চট্টগ্রাম-নাজিরহাট রেল লাইন ব্রিটিশ আমলে নির্মিত। সড়ক যোগাযোগ শুরুর অনেক আগে থেকেই এই অঞ্চলের মানুষ রেলের উপর নির্ভর করত।
দ্রুত যোগাযোগ, মালামাল পরিবহণে সুবিধা এবং খুব কম ভাড়ার কারণে এই বাহনটি যাত্রীদের নিকট বিশেষ করে নিম্ন আয়ের মানুষের কাছে খুব জনপ্রিয়তা পেয়ে আসছিল। শুরু থেকে সকালে ২ জোড়া, দুপুরে ১ জোড়া, এবং বিকালে ২ জোড়া মোট পাঁচ জোড়া যাত্রীবাহী ট্রেন অত্র লাইনে চালু ছিল। কিন্ত নব্বই দশকে হঠাৎ করে সব ট্রেন বন্ধ করে দেয়া হয়।
চট্টগ্রাম থেকে নাজিরহাট পর্যন্ত সড়ক পথে যেতে অনেক ঝক্কি-ঝামেলা, অত্যধিক ভাড়া এবং সময় ও অনেক বেশী লাগে। উল্টো ট্রেনে ঝক্কি-ঝামেলা নেই, ভাড়া ও নিতান্তই কম এবং সময় লাগে আর ও কম। যার কারণে এই অঞ্চলের মানুষের ট্রেনের প্রতি নির্ভরতা বৃদ্ধি পায় এবং তা দিন দিন বেড়েই চলেছে।
মহাজোট সরকার বিশাল অংকের অর্থ ব্যয়ে এই শাখা লাইনটি নতুন করে স্থাপন ও আধুনিকায়ন করে। অঞ্চলের জনগণের প্রত্যাশিত চট্টগ্রাম-নাজিরহাট রেল লাইনে আগের মত পাঁচজোড়া ট্রেন আর চালু হয়নি। হাটহাজারী ফাউণ্ডেশন চট্টগ্রাম” এর নেতৃত্বে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও সমাজকল্যাণমূলক সংগঠন নিম্নোক্ত দাবী সমূহ আদায়ের লক্ষ্যে মানবনন্ধন করে।
তারই ফলশ্রুতিতে সাংসদ জনাব এ বি এম ফজল করিম চৌধুরীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় রেলমন্ত্রী জনাব মুজিবুল হক চৌধুরী চট্টগ্রাম-নাজিরহাট রেল লাইনে বর্তমানে যে সাধারণ ট্রেনটি চালু আছে তাতে ৭ টি প্যাসেঞ্জার বগি এবং ২ টি মাল বগি সহ ন্যুনতম ৯ টি বগি সংযোজনসহ আপ-ডাউন ৩ জোড়া লোকাল ট্রেন এবং ৩ জোড়া ডেমুট্রেন চলাচলের অনুমোদন ও ঘোষণা দেয়। বর্তমানে চট্টগ্রাম-নাজিরহাট রেল লাইনে একজোড়া লোকাল ট্রেন ও দুই জোড়া ডেমু ট্রেন সফলভাবে চালু আছে।
আমাদের অত্র অঞ্চলের জনগণের এত শ্রম মেধা ও প্রচেষ্টা সত্ত্বেও রেলের ভিতরের বাহিরের শক্তিশালী একটি অসাধু চক্র চট্টগ্রাম-নাজিরহাট ট্রেন বন্ধ করার পাঁয়তারা চালিয়ে যাচ্ছে। অত্র অঞ্চলের জনগণের প্রাণের দাবি চট্টগ্রাম-নাজিরহাট রেল লাইনের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান এবং দাবি আদায়ে আগামী ১৯/০৯/২০১৭ তারিখে চট্টগ্রাম রেলওয়ের জি এম বরাবরে পুনরায় স্মারকলিপি প্রদান ও সি আর বি তে মানববন্ধন করা হবে।
আমরা চট্টগ্রাম “নাজিরহাট লোকাল ও ডেমুট্রেন যাত্রী কল্যাণ সমিতি” এবং “হাটহাজারী ফাউণ্ডেশন চট্টগ্রাম” হাটহাজারী ফটিকছড়ি রাউজান উপজেলার সর্বস্থরের জনসাধারণকে উক্ত স্মারকলিপি প্রদান ও মানববন্ধনে উপস্থিত থাকার জন্য সবিনয় অনুরোধ জানাচ্ছি।
আমাদের দাবি সমুহ
* অনতিবিলম্বে চট্টগ্রাম-নাজিরহাট রেল লাইনে সর্বমোট ৪ জোড়া কমিউটার ট্রেন (চট্টগ্রাম থেকে সকাল ৬.৩০ টা, সকাল ১০.৩০ টা, দুপুর ২.৩০ টা, সন্ধ্যা ৬.৩০ টা এবং নাজিরহাট থেকে সকাল ৮.৩০ টা, দুপুর ১২.৩০ টা, বিকাল ৪.৩০, রাত ৮.৩০ টায়) দিতে হবে।
* অনতিবিলম্বে চট্টগ্রাম-নাজিরহাট রেল লাইনে সর্বমোট ৪ জোড়া সাধারণ ট্রেন (নাজিরহাট থেকে সকাল ৬.০০ টা, সকাল ১০.০০ টা, দুপুর ২.০০ টা, সন্ধ্যা ৬.০০ টা এবং চট্টগ্রাম থেকে সকাল ৮.০০ দুপুর ১২.০০ টা, বিকাল ৪.০০ টা, রাত ৮.০০ টা) দিতে হবে।
* চট্টগ্রাম-নাজিরহাট রেল লাইনে বর্তমানে যে সাধারণ ট্রেনটি চালু আছে তাতে ৭ টি প্যাসেঞ্জার বগি এবং ২ টি মাল বগি সহ ন্যুনতম ৯ টি বগি দিতে হবে।
* প্রতিটি কমিউটার ও সাধারণ ট্রেন সমূহের টাইম সিডিউল ঘড়ির কাটায় কাটায় নিশ্চিত করতে হবে। শুক্রবার এবং অন্যান্য ছুটির দিনে কমিউটার ট্রেন এবং সাধারণ ট্রেন সমুহ চালু রাখতে হবে। ঈদসমুহ, মাইজভাণ্ডার দরবার শরীফের ওরশ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও স্কুল কলেজ গুলোর পরীক্ষার দিন এবং বিশেষ পূজার দিন সমুহে স্পেশাল কমিউটার ট্রেন এবং সাধারণ ট্রেন দিতে হবে।
* যাত্রীদের ওঠানামার সুবিধার্থে চট্টগ্রাম-নাজিরহাট পর্যন্ত প্রতিটি ষ্টেশনের প্লাটফরম পর্যাপ্ত পরিমাণ উচুঁ ও মেরামত করতে হবে। রেলের কতিপয় অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারীদের যোগসাজশে নাজিরহাট রেল ষ্টেশনের অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ করতে হবে এবং বেহাত হওয়া জায়গা সমুহ পুনরুদ্ধার করে নাজিরহাট ঘাটঘর পর্যন্ত রেল লাইন সম্পুর্ণ সংস্কার করে নাজিরহাট ঘাটঘর থেকেই ট্রেন ছাড়ার ব্যবস্থা করতে হবে। চট্টগ্রাম-নাজিরহাট রেল লাইনের সম্পুর্ণ ফিটনেস প্রদান পূর্বক ৭০ কি.মি গতিতে ট্রেন চলাচলের অনুমোদন দিতে হবে।
ষোলশহর রেল ষ্টেশন, ক্যান্টনমেন্ট ষ্টেশন, ফতেয়াবাদ ষ্টেশন এবং হাটহাজারী ষ্টেশনে ট্রেন ক্রসিংয়ের নামে চট্টগ্রাম-নাজিরহাট ট্রেন সমুহের কর্মমুখী যাত্রীদের দুর্ভোগ বন্ধ করতে হবে। ঝাউতলা থেকে ফতেয়াবাদ ষ্টেশন পর্যন্ত রেল লাইন সংস্কার করতে হবে।
ষোলশহর রেল ষ্টেশন থেকে নাজিরহাট পর্যন্ত ডাবল রেল লাইন করতে হবে এবং রামগড় পর্যন্ত (বর্তমান সরকারের রেলপথ সম্প্রসারণে প্রস্তাবাধীন) রেল লাইন সম্প্রসারণ করতে হবে।

লেখকদ্বয় : সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক
চট্টগ্রাম নাজিরহাট লোকাল ও ডেমুট্রেন যাত্রী কল্যাণ সমিতি