চট্টগ্রাম নাগরিক ফোরামের স্মরণসভায় বক্তারা

জনতার নেতা ছিলেন মহিউদ্দিন চৌধুরী

বিজ্ঞপ্তি

চট্টগ্রাম নাগরিক ফোরাম আয়োজিত এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর স্মরণসভায় বক্তারা বলেন, তিনি চট্টগ্রামের উন্নয়নে আপসহীন ছিলেন। সাধারণের মাঝ থেকে উঠে এসে সত্যিকারের জনতার নেতায় পরিণত হয়েছিলেন। তার রাজনৈতিক ও সামাজিক কর্মকান্ড বিরল দৃষ্টান্ত হয়ে আজ ইতিহাসের একটি অংশ। তিনি মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত ন্যায় ও সত্য প্রতিষ্ঠায় আপোষহীন সংগ্রাম করে গেছেন। সত্যের পূজারী ও আপসহীন মহিউদ্দিন চৌধুরী জনগণের কথা বলতে গিয়ে অনেক সময় নিজ দলের বিরুদ্ধেও অবস’ান নিয়েছেন। চট্টগ্রাম নাগরিক ফোরামের উদ্যোগে ১১ জানুয়ারি বিকাল ৩ টায় চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত স্মরণসভায় বক্তারা উপরের কথা বলেন।
চট্টগ্রাম নাগরিক ফোরামের উদ্যোগে ১১ জানুয়ারি বিকাল ৩টায় চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত স্মরণসভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার মনোয়ার হোসেন। সংগঠনের মহাসচিব মো. কামাল উদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত স্মরণসভায় সম্মানিত অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এম রেজাউল করিম চৌধুরী, এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর সন্তান বোরহানুল হাসান চৌধুরী সালেহীন, সাবেক সাংসদ মাজহারুল হক শাহ চৌধুরী ও যুবলীগের কেন্দ্রীয় উপ অর্থ সম্পাদক হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর।
বক্তারা আরও বলেন, এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী ভিতরে-বাহিরে যেমন স্পষ্টভাষী একমনের মানুষ ছিলেন, তেমনি ছিলেন একজন দয়ালু রাজনীতিক। তাঁর এই দর্শন ও আদর্শ বর্তমান রাজনীতিকদের অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হতে পারে। সারা জীবন লোভ লালসার ঊর্ধ্বে থেকে তিনি সর্বশ্রেণি ও পেশার মানুষকে নিয়ে অসাম্প্রদায়িক রাজনীতি করে গেছেন।
আলোচনায় অংশ নেন অধ্যাপক শফিউল বশর, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের সদস্য মোহাম্মদ ইউনুছ, জাতীয় পার্টি জেপির চট্টগ্রাম মহানগর আহবায়ক আজাদ দোভাষ, সাবেক প্যানেল মেয়র রেখা আলম চৌধুরী, বাংলাদেশ জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সিরাজুল ইসলাম রনি, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য হাসিনা জাফর, মরহুম জহুর আহম্মদ চৌধুরীর ছেলে সফর উদ্দিন চৌধুরী রাজু, মনোয়ার আজীজ, ডা. শেখ মোহাম্মদ জাহেদ, বিপ্লব দাশগুপ্ত, পানি উন্নয়ন বোর্ডের শ্রমিক ইউনিয়নের নেতা আবুল কালাম আজাদ, নির্মাণ শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক টিংকু পালিত, নাগরিক ফোরামের যুগ্ম মহাসচিব আকরাম হোসেন ও মো. জসিম উদ্দিন খন্দকার।
কোরআন তেলোয়াতের মাধ্যমে শুরু হয় স্মরণসভা। পরে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন ও মরহুমের আত্মার শান্তি কামনা করে মোনাজাত করেন মওলানা নুরুল ইসলাম।