চকরিয়ায় বিএনপি প্রার্থীর গাড়িতে হামলা আহত ৭

নিজস্ব প্রতিনিধি, চকরিয়া

চকরিয়া-পেকুয়া (কক্সবাজার-১ আসনে) ২৩ দলীয় ঐক্যজোট সমর্থিত বিএনপি মনোনীত সংসদ সদস্য প্রার্থী এডভোকেট হাসিনা আহমদ গতকাল নির্বাচনী গণসংযোগকালে চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের কাটাখালীতে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হামলার শিকার হন। ওই সময় হামলাকারী দুর্বৃত্তরা হাসিনা আহমদের গাড়িসহ তিনটি গাড়ি ও চারটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে। বিষয়টি ঘটনাস’ল থেকে নিশ্চিত করেন হাসিনা আহমদের একানত্ম সচিব সাংবাদিক ছাফওয়ানুল করিম। ঘটনায় এডভোকেট হাসিনা আহমদ অড়্গত রয়েছেন বলেও জানান একানত্ম সচিব।
চকরিয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি মিজানুর রহমান চৌধুরী খোকন মিয়া জানান, গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হাসিনা আহমদ একদল নেতাকর্মী নিয়ে ধানের শীষের সমর্থনে নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে ডুলাহাজারা ইউনিয়নের কাটাখালী যাচ্ছিলেন। এ সময় আকস্মিকভাবে স’ানীয় আওয়ামী লীগের লোকজন গাড়িবহরে হামলা চালায়। পরে ওই এলাকা থেকে বের হয়ে আসার পথে ডুলাহাজারা সাফারি পার্কের গেটের সামনে আবারও হামলার শিকার হন হাসিনা আহমদ।
হামলায় আহতদের মধ্যে আছেন বিএনপি নেতা আলী আহমদ মেম্বার (৫০), মনজুর আলম মেম্বার (৫২), ছাত্রদল নেতা আবদুল মান্নান (২৯) ও বিএনপি নেতা হারম্ননুর রশিদ (৩৪)। আহত অপর দুজনের নাম তাৎড়্গণিকভাবে পাওয়া যায়নি। আহতরা উপজেলার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানান উপজেলা বিএনপির সভাপতি মিজানুর রহমান চৌধুরী খোকন মিয়া।
বিএনপির প্রার্থী এডভোকেট হাসিনা আহমদ বলেন, ‘আমার শানিত্মপূর্ণ নির্বাচনী গণসংযোগে আওয়ামী লীগের লোকজন হামলা চালিয়ে আমার গাড়িসহ ৭টি গাড়ি ভাঙচুর করেছে। নেতাকর্মীদের মারধর করেছে। তিনি বলেন, এভাবে প্রতিদিনই নির্বাচনী এলাকার কোনো না কোনো স’ানে নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করা হচ্ছে। নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর ও প্রচারণার কাজে বাধা দেয়া হচ্ছে। এতে নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে।
চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে তাৎড়্গণিক পুলিশ ফোর্স পাঠানো হয়। পরিসি’তি নিয়ন্ত্রণে বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারণা স্বাভাবিক করা হয়েছে। হামলার বিষয়ে এখনো থানায় কেউ অভিযোগ দেয়নি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদনত্ম সাপেড়্গে আইনগত ব্যবস’া নেয়া হবে।