চকবাজার থানা পুলিশের বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ

এলাকাবাসীর মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক

নগরীর চকবাজার থানা পুলিশের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, ইয়াবা মামলায় ফাঁসিয়ে দিয়ে টাকা আদায় ও হয়রানির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে এলাকাবাসী। এতে বিভিন্ন অপকর্মে জড়িত চকবাজার থানার কর্মকর্তাদের প্রত্যাহার করে আইনগত ব্যবস’া নিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে ‘সচেতন চকবাজারবাসী’ ব্যানারে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে চকবাজার থানার বিভিন্ন এলাকার লোকজন অংশ নেন।
মানববন্ধনে অংশ নিয়ে বক্তারা বলেন, ‘চকবাজার থানার এএসআই রমজান আলী, এএসআই ইউনুস, এএসআই মমতাজ ও এএসআই নজরুল ইসলামসহ আরও কয়েকজন পুলিশ সদস্য পুরো থানাকে জিম্মি করে রেখেছে। এসব পুলিশ কর্মকর্তাদের অত্যাচারে চকবাজারের সাধারণ লোকজন অতিষ্ঠ। চকবাজার থানা পুলিশ করছে না এমন কোন অপকর্ম বাদ নেই। পুলিশই বিভিন্ন দালাল দিয়ে এলাকায় মাদক ব্যবসা করছে। চকবাজার থানা পুলিশ মানুষের নিরাপত্তা দিচ্ছে না। তারা এখন মামলায় জড়ানোসহ চাঁদা আদায়ে ব্যস্ত রয়েছে। এ এলাকার লোকজন এখন পুলিশি আতংকে রয়েছে। প্রতিমাসে অর্ধকোটি টাকার বেশি চাঁদাবাজি করছে চকবাজার থানার পুলিশ সদস্যরা। পুলিশ সবচেয়ে বেশি চাঁদাবাজি করে চকবাজারের বিভিন্ন আবাসিক হোটেল, হকার, মহিলা হোস্টেল, জুয়ার বোর্ড, আলো আঁধারি রেস্টুরেন্ট ও মাদক স্পট থেকে। আবার বিভিন্ন নিরীহ মানুষকে আটক করে ইয়াবা পেয়েছে বলে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে। আর টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে বিভিন্ন ইয়াবা মামলায় ফাঁসিয়ে চালান করে দেয়। মোটা অংকের টাকা দিতে পারলে ছেড়ে দেয়া হয়। চকবাজারে মুরগির দোকানগুলোতে এককেজির পরিবর্তে দেওয়া হয় আটশ গ্রাম। দুইশ গ্রামের টাকা থানা পুলিশকে চাঁদা হিসেবে দিতে হয়ে।’
বক্তারা অভিযোগ করে
আরও বলেন, ‘এসব অসাধু পুলিশ কর্মকর্তা সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে এসব অপকর্ম করছে। অপকর্ম করে পুলিশ আর বদনাম হয় সরকারের।’
মানববন্ধনে অংশ নিয়ে আবদুল হাকিম নামে একজন বলেন, ‘চকবাজার থানা পুলিশ মানুষের নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছে না। বেশিরভাগ পুলিশ সদস্যই বিভিন্ন অপকর্মে জড়িত। পুলিশ সদস্যরা নিরীহ মানুষকে ইয়াবা মামলায় ফাঁসিয়ে দিচ্ছে। সিরাজদ্দৌলা রোড, প্যারেড কর্ণার আশপাশে, লালচান্দ রোড, কাঁচা বাজার এলাকায় প্রতি দোকান থেকে ৩ হাজার টাকা থেকে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত চাঁদা আদায় করা হচ্ছে।’
মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দেলোয়ার হোসেন ফরহাদ, অ্যাডভোকেট শাকিল আহমেদ, অনীক বড়-য়া, ফরমান আলী প্রমুখ।