পায়ে হেঁটে মানুষের ঘরে

ঘরে ফজলে করিম ‘নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করবো’

নিজস্ব প্রতিনিধি, রাউজান

প্রাণের টানে রাউজানে মানুষের ঘরে-ঘরে কর্মসূচি গত ১৬ এপ্রিল পশ্চিম গহিরা সর্তার ঘাট থেকে শুরু হয়। কর্মসূচির উদ্বোধন করেন এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি। এসময় আরো উপসি’ত ছিলেন রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এহসানুল হায়দার বাবুল, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ সহসভাপতি কাজী আবদুল ওহাব, উপজেলা আওয়ামী লীগ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কামাল উদ্দিন আহম্মদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ সহসভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম, অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম রাউজান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফৌজিয়া খানম মিনা, রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক রাউজান
পৌরসভার প্যানেল মেয়র বশির উদ্দিন খান, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক, পৌর কাউন্সিলর আলমগীর আলী, উপজেলা আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক জসিম উদ্দিন চৌধুরী, রাউজান পৌরসভা আওয়ামী লীগ সভাপতি নজরুল ইসলাম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম শাহজাহান, চেয়ারম্যান নুরুল আবছার বাঁশি, সরোয়ার্দি সিকদার, প্রিয়তোষ চৌধুরী, আবদুর রহমান চৌধুরী, শফিকুল ইসলাম। উপসি’ত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা পৌর কাউন্সিলর কাজী ইকবাল, জানে আলম জনি, এডভোকেট সমীর দাশ গুপ্ত, আজাদ হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল মোমেন, এসএম বাবর, বাবর উদ্দিন, লোকমান, আলমগীর, মোসলেম উদ্দিন চৌধুরী, জসিম উদ্দিন, সাহাবউদ্দিন চৌধুরী সাইফু, মাহাবুল আলম, কামরুল হাসান বাহাদুর, ইরফান আহম্মদ চৌধুরী, শ্যামল পলিত, সাইফুল ইসলাম চৌধুরী রানা, আবদুল লতিফ, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি, রাউজান পৌরসভার কাউন্সিলর জমির উদ্দিন পারভেজ, সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান সৈয়দ আবদুল জব্বার সোহেল, উপজেলা যুবলীগ সহসভাপতি সারজু মোহাম্মদ নাসের, সুমন দে, শওকত হোসেন, উপজেলা যুবলীগ যুগ্ম সম্পাদক আহসান হাবিব চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মোহাম্মদ রাশেদ, দপ্তর সম্পাদক তপন দে, যুবলীগ নেতা আজিজউদ্দিন ইমু, রাউজান পৌরসভা যুবলীগ সভাপতি হাসান মো. রাসেল, সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হক রোকন, যুবলীগ নেতা জাবেদ রহিম, মনসুর আলম, রাজু, বখতেয়ার হোসেন, সাইদুল ইসলাম মনসুর, মিজানুর রহমান মাসুদ, আলী মেহেদী রাজু, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি জিল্লুর রহমান মাসুদ, সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন পিপলু, পৌরসভা ছাত্রলীগ সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী, সাধারণ সম্পাদক আশিফ। ওইদিন সকাল ৯ টায় পায়ে হেঁটে রাউজান কর্মসূচির উদ্বোধন করার পর এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি দলীয় নেতাকর্মী ও স’ানীয় জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে সর্তার ঘাট থেকে পশ্চিম গহিরা ব্রিকফিল্ড এলাকা দিয়ে ইছাপুর সড়ক হয়ে গহিরা ইউনিয়নের দলইনগর, কোতোয়ালী ঘোনা, নোয়াজিশপুর ইউনিয়নের নদীমপুর তেতুলতলা, ছিদ্দিক বাজার হয়ে মিনা আকবর সড়ক হয়ে নোয়াজিশপুর ফতেহনগর নতুন হাট, সেখান থেকে চিকদাইর ইউনিয়নের দক্ষিণ সর্তা হক বাজার হয়ে ডাবুয়া জগ্ননাথ, তারপর হলদিয়া ইউনিয়নের হলদিয়া উত্তর সর্তায় যান। পায়ে হেঁটে কর্মসূচি চলাকালে এলাকার নারী-পুরুষ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপিকে অভিনন্দন জানান। এসময় তিনি এলাকার নারী ও পুরুষের সাথে মতবিনিময় করেন। এ সময় পশ্চিম গহিরা এলাকার রফিক লেবুর শরবত তৈরি করে কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারীদের শরবত খাওয়ান। এছাড়াও পায়ে হেঁটে রাউজানের মানুষের ঘরে ঘরে কর্মসূচি চলাকালে চেয়ারম্যান নুরুল আবছার বাঁশি ও সরোয়ার্দি সিকদার, যুবলীগ নেতা মো. হাশেম এবি এম ফজলে করিম চৌধুরীকে নৌকা প্রতীক উপহার দেন।
কর্মসুচি শেষে রাতে হলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদে রাতযাপন করবেন এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপিসহ নেতাকর্মীরা। আগামীকাল মঙ্গলবার ডাবুয়া ইউনিয়ন, উপজেলা সদর হয়ে রাউজান ইউনিয়ন, কদলপুর ইউনিয়ন হয়ে পাহাড়তলী ইউনিয়নে গিয়ে রাতযাপন করবেন। ১৮ এপ্রিল থেকে ২০ এপ্রিল শুক্রবার পর্যন্ত পাহাড়তলী ইউনিয়নের মহামুনি, শেখ পাড়া, বাগোয়ান ইউনিয়নের কোয়ে পাড়া, পাঁচখাইন, নোয়াপাড়া ইউনিয়নের উভলং, পালোয়ান পাড়া, চৌধুরী হাট হয়ে নোয়াপাড়া পথের হাট, পূর্ব গুজরা ইউনিয়নের বড়ঠাকুর পাড়া, আধারমানিক, হোয়ারা পাড়া, পশ্চিম গুজরা ইউনিয়নের কাগতিয়া, মিরধার পাড়া, ডোমখালী, মগদাই, উরকিরচর, মিরা পাড়া, হারপাড়া, খলিফার ঘোনা, আবুল খীল, পশ্চিম বিনাজুরী হয়ে গহিরায় নিজ বাড়িতে এসে কর্মসূচির সমাপ্তি করবেন। কর্মসূচি চলাকালে বিভিন্ন এলাকায় পথসভায় ফজলে করিম চৌধুরী বলেন, রাউজানের মাস্টারদা সূর্য সেন ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়ে রাউজানকে বিশ্বের কাছে পরিচিতি করেন। একশ ৫০ কিলোমিটার সড়ক পায়ে হেঁটে সাধারণ মানুষের সাথে কথা বলে নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করবো।