গ্রেফতার আরও দুই আসামির রিমান্ড চেয়েছে পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

নগরের সদরঘাটে পরিকল্পিতভাবে সুদীপ্ত বিশ্বাস হত্যায় গ্রেফতার আরও দু’জন আসামির ৫ দিন করে রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করেছে পুলিশ।
গতকাল মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদরঘাট থানার পরিদর্শক রুহুল আমিন মহানগর হাকিম আবু সালেম মো. নোমানের আদালতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এ আবেদন করেন। আদালত রিমান্ড আবেদন গ্রহণ করে আসামিদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয় এবং রিমান্ড মঞ্জুরের বিষয়টি ঁ
শুনানির জন্য পরবর্তীতে সময় নির্ধারণ করবেন বলে জানায়। এ দু’জন আসামি হলেন- মো. আমির হোসেন বাবু (২০) ও খায়রুল নূর ইসলাম খায়ের (২০)।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদরঘাট থানার পরিদর্শক রুহুল আমিন সুপ্রভাতকে বলেন- গতকাল রাত ৯টার দিকে লালখানবাজার এলাকার বাঘঘোনা মোড় থেকে দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা সুদীপ্ত হত্যায় অংশ নেয়ার কথা স্বীকার করেছে। তারা দু’জনই লালখানবাজার এলাকার বাসিন্দা।
নগরে ঘটে যাওয়া ৬ অক্টোবর (শুক্রবার) সকালে নৃশংসভাবে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করা মহানগর চাত্রলীগের সহ-সম্পাদক সুদীপ্ত বিশ্বাস হত্যাকাণ্ডে এ পর্যন্ত পুলিশ গ্রেফতার করে তিনজনকে। তারা সবাই লালখানবাজার এলাকার বাসিন্দা।
এর আগে মোক্তার হোসেন (৩০) নামে এক যুবলীগ কর্মীকে ১৩ অক্টোবর (শুক্রবার) সুদীপ্ত হত্যায় জড়িত থাকার অপরাধে গ্রেফতারের পর পুলিশ ১০ দিনের রিমান্ড চাইলে ৪র্থ মেট্রোপলিটন মেজিস্ট্র্রেট শফি উদ্দিনের আদালত ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। গ্রেফতার এড়াতে পালানোর সময় নগরের বড়পোলের শাহী বাস কাউন্টার থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশসূত্রে জানা যায়- সে পালিয়ে ভোলায় চলে যাচ্ছিল। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সুদীপ্ত হত্যায় অংশ গ্রহণের কথা সেও স্বীকার করেছে।
জানা যায়, মোক্তার হোসেন নগরের লালখানবাজার এলাকার বাসিন্দা। এলাকায় সে যুবলীগকর্মী হিসেবে পরিচিত। হত্যাকাণ্ডের পর পুলিশসহ নানান সূত্রে সুদীপ্ত হত্যায় লালখান বাজার এলাকার এক আওয়ামী লীগ নেতা জড়িত বলে জানা যায়।