গানের শিল্পী রিয়াদ হাসান

দেবাশীষ কান্তি বিশ্বাস
Riad-(4)

চট্টগ্রামের ছেলে রিয়াদ হাসান। বেড়ে ওঠা কালুরঘাটের ইস্পাহানী জুট মিলের অফিসার্স কলোনিতে। গানের প্রতি আগ্রহ ছোটবেলা থেকেই। অষ্টম শ্রেণিতে পড়ার সময়ে কলোনির এক বড় ভাইয়ের কাছেই গিটারে হাতেখড়ি। পরবর্তীতে শাস্ত্রীয় সংগীতে তালিম নিতে যান সুরবন্ধু অশোক চৌধুরীর কাছে। যদিও তা বছরচারেকের বেশি চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়নি। অডিও ইন্ড্রাস্ট্রিতে অভিষেক ঘটে ২০১১ সালে।
এয়ারটেল প্রেজেন্টস ‘রেডিও মিউজিক-ভালোবাসি তোমাকে’ নামের একটি মিক্সড অ্যালবামে, সন্ধির লেখা ও সুর করা ‘এতদূর ঘুরে এসে’ নামে একটি দেশাত্মবোধক গান দিয়ে। মাঝে একটি বহুজাতিক কর্পোরেট কোম্পানিতে কাজের কারণে গানে কিছুটা অনিয়মিত ছিলেন। ২০১৪ সালে প্রকাশিত হয় তার একক গানের অ্যালবাম। শিরোনাম ছিল ‘যদি ভাবো’। অ্যালবামের টাইটেল ট্র্যাক ‘যদি ভাবো’ গানটি বেশ জনপ্রিয়তা পায়। তৈরি হয় গানটির মিউজিক ভিডিও। সমপ্রতি মুক্তির অপেক্ষায় আছে তার দ্বিতীয় একক অ্যালবাম ‘মিনিপ্যাক’।
নিজের গানের পাশাপাশি অন্যশিল্পীদের জন্যেও সুর করছেন রিয়াদ। তার সুরে কন্ঠ দিয়েছেন হাসান আবিদুর রেজা জুয়েল, ন্যান্সি, ঐশীসহ আরও অনেকে। ঢাকার উত্তরায় শাইখ সালেকিনের সাথে যৌথ প্রচেষ্টায় গড়ে তুলেছেন ‘ড্যাক্যাপোগিটার স্কুল’ নামে গিটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। এছাড়াও নিয়মিত মঞ্চ পরিবেশনার পাশাপাশি চট্টগ্রামের ছেলে রিয়াদ কাজ করছেন আঞ্চলিক গান নিয়ে। চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষায় তার লেখা ও সুর করা ‘জিইসির মুরুত’, ‘ডিজিট্যাল ফুয়া’ গানগুলো বেশ শ্রোতাপ্রিয় হয় ইউটিউবের কল্যাণে। ‘ডিজিট্যাল ফুয়া’ গানটি নিয়ে গতবছর তৈরি হয় এক পর্বের টিভি নাটক।
সমপ্রতি ইউটিউবে মুক্তি পেয়েছে তার নতুন আঞ্চলিক গান ‘সাতকানিয়া-ফটিকছড়ি’। মুক্তির পরপরই গানটি নজরে আসে দেশ-বিদেশের অসংখ্য শ্রোতার। মূলত প্রেম উপজীব্য করে লেখা রসাত্মক এ গানটিতে উঠে এসেছে চট্টগ্রামের এক চিরচেনা চেহারা যা দাগ কেটেছে লাখো চট্টগ্রামপ্রেমীর মুখে। শিল্পী রিয়াদ হাসান অত্যন্ত সদালাপী, বিনয়ী। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ করেছেন। বাবা পেশায় ইঞ্জিনিয়ার, মা গৃহিনী। বড় ভাই ব্যাংকার ও এক বোন। চট্টগ্রামের সংগীতাঙ্গনে কাজ করার তাঁর প্রবল ইচ্ছা। এ ইচ্ছাকে বাস্তবের রূপ দিতে ইতিমধ্যে কাজ শুরু করেছেন ‘চ্যানেল আর এ’ নিবেদিত চট্টগ্রামে প্রথম চলচ্চিত্র ‘চট্টলা এক্সপ্রেস’ এর সাথে।
শিল্পীর সৃষ্টিশীল সংগীত অ্যালবামগুলি শ্রোতা ও সংগীত অনুরাগীদের মাঝে আনন্দ যোগাবে এবং একটি গতিশীল সংগীত পরিবেশ তৈরি করতে সহায়তা করবে। দিন দিন রিয়াদ আরও সাফল্য লাভ করবে। গানের রাজ্যে একদিন রিয়াদও আসন দখল করবে।