খালেদা-তারেকের আস্থা হারিয়েছেন মওদুদ : হাছান

সুপ্রভাত ডেস্ক

বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদকে স্বয়ং খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানও ‘সন্দেহের চোখে’ দেখেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ। খবর বিডিনিউজ’র।
শনিবার চট্টগ্রামে নিজের বাসায় এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের আস’া হারিয়েছেন মওদুদ আহমদ। কিছুদিন আগে সংবাদ বের হয়েছে খালেদা জিয়া তার আইনজীবীদের বলেছেন মামলায় যেন মওদুদ আহমদকে রাখা না হয়।’

নোয়াখালীতে বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদকে অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগের প্রতিক্রিয়া জানাতে হাছান মাহমুদ এ সংবাদ সম্মেলন করেন।
তিনি বলেন, ‘মওদুদ আহমদকে নোয়াখালীতে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়নি। সেখানে গিয়ে তিনি নাটক সৃষ্টি করছেন, যাতে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের এবং জনগণের নজরে আসতে পারেন।’
বিএনপি নেতাকর্মীরাও মওদুদকে সন্দেহের চোখে দেখেন বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগ নেতা হাছান মাহমুদ।
‘কখনও মওদুদ আহমদ ঈদের আগে বাড়িতে যেতেন না। ক্ষমতায় থাকাকালীন এবং গত কয়েক বছর ধরে তিনি বাড়ি যেতেন ঈদের পরে। এবার তিনি ঈদের চার-পাঁচদিন আগে বাড়ি গেছেন। গত রমজানের ঈদেও গেছেন।’

কোটা সংস্কার ও নিরাপদ সড়কের আন্দোলনে মওদুদ আহমদের ইন্ধন ছিল মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘গত ঈদের আগে কোটাবিরোধী আন্দোলন হয়েছিল। সেখানে কিছু করতে না পেরে ঈদে বাড়ি গিয়ে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছিল বলে নাটক সাজিয়েছিলেন।’

কিশোর-কিশোরীদের নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনে সরকারের পূর্ণ সমর্থন ছিল জানিয়ে হাছান বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী সব দাবি মেনে বাস্তবায়নের কাজ শুরু করেছেন। সেই আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে মওদুদ আহমদসহ আরও অনেকেই ২৫-৩০ বছরের যুবক মহিলাদের স্কুলের ড্রেস পরিয়ে পেছনে ব্যাগ ঝুলিয়ে কোমলমতি সাজিয়েছেন।
‘তাদের সেই ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়েছে। সরকারের সময়োচিত পদক্ষেপের কারণে কিশোর-কিশোরীদের ঘাড়ের ওপর চড়ে বন্দুক শিকারের যে পাঁয়তারা, সেটি ব্যর্থ হয়েছে।’
আন্দোলনে ব্যর্থ হয়েই অবরুদ্ধ হওয়ার এই নাটক সাজানো হয়েছে বলে মনে করেন হাছান।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপসি’ত ছিলেন উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও প্যানেল মেয়র হাছান মাহমুদ হাসনী।