খাগড়াছড়ির ৮ উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১০৯ জন প্রার্থী

নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি

মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে খাগড়াছড়ি জেলার ৮ উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান পদে ৪০, ভাইস চেয়ারম্যানপদে ৩৮ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানপদে ৩১ প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।
সদর উপজেলা পরিষদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. শানে আলম দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে রিটার্নিং অফিসার কাজী মোহাম্মদ চাহেল তস’রীর কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন। ঁ
এছাড়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যানপদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) সমর্থিত বর্তমান চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমা ও পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস-এমএন) তরুণ আলো দেওয়ান, বাঙালি ছাত্র পরিষদ (একাংশ) সমর্থিত মো. নজরুল ইসলাম মাসুদ, এনপিপি’র আয়নাল হক।
ভাইস চেয়ারম্যান পদে জেলা যুবলীগ সহসভাপতি মেহেদী হাসান হেলাল, আক্তার হোসেন, ফারুক ভূইয়া, রুতান চৌধুরী, বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান রণিক ত্রিপুরা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিউটি রানী ত্রিপুরা ও নিউসা মগ মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।
রামগড়ে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য গতকাল বিকাল ৫টা পর্যন্ত চেয়ারম্যানপদে ৫জন, পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যন পদে ৩ প্রার্থী মনোয়ন ফরম দাখিল করেছেন।
রামগড় উপজেলা নির্বাচনী অফিস সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বিকাল ৫টা পর্যন্ত চেয়ারম্যানপদে মনোয়ন ফরম জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক বিশ প্রদীপ কুমার কারবারী, স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মধ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক কাজী নুরুল আলম আলমগীর, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) আবদুল কাদের, পৌর আওয়ামী লীগ আহ্বায়ক রফিকুল আলম কামাল ও সাবেক শিবির নেতা আবু বক্কর সিদ্দিক।
ভাইস চেয়ারম্যানপদে মনোয়ন ফরম জমা দিয়েছেন যুবলীগ নেতা কাজী মো. জিয়াউল হক শিপন ও উপজেলা যুবলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার ফারুক।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যনপদে উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী নিউসং চৌধুরী এবং উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সহসভানেত্রী হাছিনা বেগম ও নাছিমা আহসান নীলা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।
মানিকছড়ি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে একমাত্র প্রার্থী, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন। ভাইস চেয়ারম্যন পুরুষ পদে ৪ যুবলীগ নেতাসহ ৫জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানপদে পদে ৪জন মনোনয়নপত্র জমা দিলেও একমাত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মো. জয়নাল আবেদীন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। ফলে ধরেই নেওয়া যায়, আওয়ামী লীগ মনোনীত দলীয় প্রতীক নৌকার কাণ্ডারি মো. জয়নাল আবেদীন আগামী দিনে মানিকছড়ি উপজেলা পরিষদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি।
ভাইস চেয়ারম্যানপদে প্রার্থীরা হলেন বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মো. তাজুল ইসলাম বাবুল, উপজেলা যুবলীগ সহসভাপতি ও ঠিকাদার মো. সামায়উন ফরাজী সামু, উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক ও মেমোরি কিন্ডারগার্টেন এন্ড পাবলিক স্কুলের পরিচালক এবং ঠিকাদার মো. জাহেদুল আলম মাসুদ, উপজেলা যুবলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক ও ইউপি সদস্য মো. ইদ্রিস ইসলাম বাচ্চু ও উপজেলা আনসার ও ভিডিপির পিসি মো. নাছির উদ্দীন।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানপদে মনোনয়নপত্র নিয়েছেন ৪জন। এরা হলেন বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান রাহেলা আক্তার, সাবেক সংরক্ষিত ইউপি সদস্য শিউলি বেগম, সাবেক সংরক্ষিত ইউপি মহিলা সদস্য নারীনেত্রী ডলি চৌধুরী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মরহুম ডা. খান মকবুল আহম্মদের কনিষ্ঠকন্যা নুরজাহান আফরিন লাকি।
দীঘিনালা উপজেলায় চেয়ারম্যানপদে প্রার্থিতার জন্য মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ৮জন। ভাইস চেয়ারম্যানপদে ৪জন এবং নারী ভাইস চেয়ারম্যানপদে ৩জন। তবে নির্বাচন করছেন না বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নবকমল চাকমা।
চেয়ারম্যানপদে দলীয় প্রতীকে প্রার্থী একজন। তিনি হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি হাজি মো. কাশেম। বাকিরা স্বতন্ত্র প্রার্থী হলেও আঞ্চলিক রাজনৈতিক সংগঠন সমর্থিত কয়েকজন প্রার্থীও রয়েছেন।
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রকর চাকমা জানান, চেয়ারম্যানপদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন হাজি মো. কাশেম, রাজ্যময় চাকমা, প্রফুল্ল কুমার চাকমা, উমেশ কান্তি চাকমা, সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ধর্ম্মবীর চাকমা, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যনি বিশ্বকল্যাণ চাকমা, সাবেক শিক্ষক নেতা সাধন চন্দ্র চাকমা এবং প্রিয়দর্শী চাকমা।
ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন মো. মোস্তফা কামাল মিন্টু, সমদানন্দ চাকমা, সুসময় চাকমা এবং অনুপম চাকমা। নারী ভাইস চেয়ারম্যানপদে মনোনয়পত্র জমাদানকারীরা হলেন লিপি দেওয়ান, সীমা দেওয়ান এবং গোপা দেবী চাকমা।
পানছড়িতে চেয়ারম্যানপদে ৬জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৭জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রির্টানিং কর্মকর্তা মো. তৌহিদুল ইসলাম বলেন, চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সম্পাদক বিজয় কুমার দেব, অনিল চন্দ্র চাকমা (ইউপিডিএফ), মিটন চাকমা ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক), অনিল কান্তি দে, শান্তিজীবন চাকমা (ইউপিডিএফ) এবং শ্যামল কান্তি চাকমা (জেএসএস-এমএন লারমা) রয়েছেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মিলন বিবি, মনিকা ত্রিপুরা ও রত্না তংচঙ্গা।
পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যানপদে সাংবাদিক শাহজাহান কবির সাজু, মো. এমরান হোসেন, আয়ন চাকমা মুকুল, হারুনুর রশিদ, চন্দ্রদেব চাকমা, মনীন্দ্র লাল ত্রিপুরা ও প্রশান্ত চাকমা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।
মাটিরাঙায় নৌকা প্রতীকে উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রফিকুল ইসলাম, একই দলের উপজেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম, স্বতন্ত্র মো. আলী ভূঁইয়া এবং এনপিপি’র শেখ সালাউদ্দিন সালু রয়েছেন। চেয়ারম্যানপদে মাটিরাঙা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মো. তাজুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মাটিরাঙা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম এবং মোহাম্মদ আলী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।
ভাইস চেয়ারম্যানপদে মনোনয়ন ফরম জমা দেন গোমতি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. মনির হোসেন, মাটিরাঙা উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আলী হোসেন, যুবলীগ নেতা মো. আনোয়ার হোসেন, বড়নাল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আবুল বশর এবং পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. আনিছুজ্জামান ডালিম। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানপদে মনোনয়ন ফরম জমা দেন মাটিরাঙা উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী হোসনে আরা বেগম, উপজেলা পরিষদের বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাসিনা বেগম, জাতীয় পার্টির খাদিজা বেগম, মরিয়ম বেগম ও রোজিনা আক্তার।
৫জন চেয়ারম্যান পদে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ৪জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বলে উপজেলা নির্বাচন অিিফস সূত্রে জানা গেছে। সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদ ইকবাল জানান, উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন বিক্রি হয়েছিল ১৫ জন। তার মধ্যে চেয়ারম্যানপদে সবাই মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে একজন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানপদে একজনের মনোনয়নপত্র জমা হয়নি। এর মধ্যে একজন প্রার্থী ২টি পদে মনোনয়ন নিলেও জমা দিয়েছেন একটি পদে। মনোনয়নপত্র যারা জমা দিয়েছেন তার হলেন লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান অংগ্য প্রু মারমা, সাবেক লক্ষ্মীছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রাজেন্দ্র চাকমা, আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মনোনীত প্রার্থী বাবুল চৌধুরী, সাবেক ভারপ্রাপ্ত বর্মাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান স্বপন চাকমা ও সাবেক বর্মাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান নীলবর্ণ চাকমা । পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. নুরে আলম, রাজু চাকমা দীপান্তর ও উল্লাচি মার্মা মনোনয়নপত্র জমা দেন।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানপদে সুমনা চাকমা, মেরিনা চাকমা, রত্না চাকমা ও মিনুচিং মারমা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। আগামী ২০ মার্চ মনোনয়নপত্র বাছাই করা হবে।
মহালছড়িতে চেয়ারম্যানপদে বর্তান চেয়ারম্যান জনসংহতি (এমএন লারমা) অংশের কেন্দ্রীয় নেতা বিমল কান্তি চাকমা, সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সোনরতন চাকমা, বর্তমান মহিলা ভাইস- চেয়ারম্যান কাকলী খীসা, মুক্তিযোদ্ধা হুমায়ুন কবির, ক্যাজই মারমা এবং সুকুমার চাকমা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।।
পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যানপদে উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জসিম উদ্দিন, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি জিয়াউর রহমান, হৃদয় চাকমা ও বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান ক্যাচিংমিং চৌধুরী। নারী ভাইস চেয়ারম্যানপদে শেফালী আক্তার, স্বপ্না চাকমা, ভূমিকা ত্রিপুরা, ববিতা ত্রিপুরা, অংহ্লা মারমা এবং সুইম্রাচিং মারমা।
বিএনপি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্তের কারণে শাসকদল ও আঞ্চলিক সংগঠনগুলোর মধ্যে চলছে নানা হিসেবে-নিকেশ।
উল্লেখ্য, চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে খাগড়াছড়ির ৯টি উপজেলা পরিষদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মাত্র একটি উপজেলা পরিষদে আর বিএনপি জয়ী হয় দুটি উপজেলায়। তিনটি উপজেলা পরিষদে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরা সামান্য ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়। ৫টি উপজেলা পরিষদে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) ও একটি জেএসএস (এমএন লারমা) সমর্থিত প্রার্থীরা নির্বাচিত হয়।