কোটা সংস্কার আন্দোলন শুরু করেছিল শিবির: নৌমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সমালোচনা করেছেন নৌমন্ত্রী শাজাহান খান। নৌমন্ত্রীর ধারণা, কোটা সংস্কার আন্দোলনে নেতৃত্বদানকারীদের পরিবার স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধবিরোধী। এর যুক্তি হিসেবে তিনি বলেন, কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা জয়বাংলা বলে না এবং বঙ্গবন্ধুর নামে কোনো স্লোগানও দেয় না। তিনি গতকাল চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের নিউমুড়িং কনটেইনার টার্মিনাল জেটিতে ১০টি যন্ত্র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।
২০০৪ সালে ইসলামি ছাত্রশিবির কোটা সংস্কার আন্দোলন শুরু করেছিল উল্লেখ করে নৌমন্ত্রী বলেন, মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীশক্তির নানা ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে আওয়ামী লীগ সরকার এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে পাকিস্তান এখনো ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে এদেশে তাদের এজেন্টদের ব্যবহার করে। এর একটি হলো কোটা সংস্কার আন্দোলন। ঔদ্ধত্য প্রকাশ আর মানুষের দুর্ভোগ সৃষ্টি করে কোটা আন্দোলন হতে পারে না। আসলে কোটা সংস্কার আন্দোলনের নামে এটাকে অন্য জায়গায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চলছে।
রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, অর্থনৈতিক উন্নয়ন, শ্রমিকদের কাজের পরিবেশ ও সবার আন্তরিকতা থাকলেই দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন সম্ভব। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা সৃষ্টি করতে পেরেছেন। তারপরও তাকে বিব্রত করতে অনেক অপচেষ্টা চলছে।
প্রধানমন্ত্রীর প্রতি দাবি তুলে ধরে তিনি বলেন, মেধার ভিত্তিতে চাকরি হোক। তবে যারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাস করে না, রাজাকার-আলবদর, জামাত-শিবির ও স্বাধীনতাবিরোধীদের সন্তানেরা সরকারি চাকরি পেতে পারবে না।
উল্লেখ্য, বর্তমানে দেশে কোটা নিয়ে আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোটা বাতিলের ঘোষণা দিলেও এখনো তা গেজেট আকারে প্রকাশিত হয়নি। এখন গেজেট প্রকাশের দাবিতে আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা।