কর্মশালায় ডিআইজি এসএম মনির-উজ-জামান

কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়

এসো সড়ক দুর্ঘটনা মুক্ত বাংলাদেশ গড়ি এ স্লোগানের আলোকে ‘সেবক’র উদ্যোগে দু’শতাধিক চালকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তারেক সোলায়মান সেলিমের উদ্বোধনের মাধ্যমে শুরু হয়। আলোচনা সভা সেবক’র চট্টগ্রামের সভাপতি আকরাম হোসেনের সভাপতিত্বে ১৬ জুন চট্টগ্রাম নন্দনকাননের পুলিশ প্লাজা ভবনে হোটেল রেক্সে অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডি আই জি এস এম মনির-উজ-জামান।
এসময় তিনি বলেন, চোখে ঘুম রেখে গাড়ি চালানো থেকে বিরত থাকবেন। চালকদের অজ্ঞতার কারণে আমাদের দেশে প্রতিনিয়ত শত শত প্রাণ অকালে ঝড়ে যাচ্ছে এবং হাজার হাজার মানুষ সড়ক দুর্ঘটনায় আক্রান্ত হয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করতে হয়েছে। চালকদের প্রতি দেশের প্রচলিত ট্রাফিক আইন মেনে চলার মানসিকতা প্রস্তুত করতে হবে। কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়।
বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম নগরিক ফোরামের চেয়ারম্যান আন্তর্জাতিক মানবাধিকার নেতা ব্যারিস্টার মনোয়ার হোসেন বলেন, উন্নত বিশ্বে চালকদের সড়ক দুর্ঘটনার বিষয়ে পৃথকভাবে প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে। বিশেষ করে চালকদের কারণে কোনো নিরহ মানুষের যেন প্রাণঘাতী না হয়।
সে ক্ষেত্রে সোচ্চার ও সচেতনতাকে প্রাধান্যতা দিয়ে থাকে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত নিহতদের ইনসুরেন্স কোম্পানির মাধ্যমে পর্যাপ্ত পরিমাণ ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা ঐসব দেশে থাকলেও আমাদের দেশে দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তরা কোন ধরনের ক্ষতিপূরণ পায় না।
বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম নাগরিক ফোরামের মহাসচিব মো. কামাল উদ্দিন।
সেবকের কেন্দ্রীয় সভাপতি খান মো. বাবুল সড়ক দুর্ঘটনার এক পরিসংখ্যানে বলেন, ২০১৬ সালে দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রায় পনের হাজার মানুষ নিহত হন এবং প্রায় পঁচিশ হাজার মানুষ পঙ্গুত্ববরণ করে।
কর্মশালা ও আলোচনা সভা সেবক’ এর চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সোবহান রেজার সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মো. জাহাঙ্গীর আলম, আব্দুস সোবাহন রেজা, ইমরান মিঞা, ইমতিয়াজ উদ্দীন সুজন, শাহাদাত হোসেন, সুজন মল্লিক, মো আব্দুর রহমান, মো. ইকবাল বাহার।
প্রশিক্ষণ কর্মশালা ও আলোচনা সভা পরে উপস্থিতিদের জন্য ইফতারের আয়োজন করা হয়। পরে কোরান তেলোওয়াতের মাধ্যমে মোনাজাত পরিচালনা করেন মওলানা মো. নাসির । বিজ্ঞপ্তি