কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্সের অবৈধ স’াপনা উচ্ছেদে বাধা নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক

কর্ণফুলী নদীর তীরে গড়ে ওঠা অবৈধ স’াপনা উচ্ছেদের বিষয়ে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশের বিরম্নদ্ধে করা কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্সের আবেদন গতকাল সোমবার খারিজ করে দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। ফলে কর্ণফুলীর যে অংশে কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্সের অবৈধ স’াপনা আছে সেটুকু অপসারণ করতে এখন আর কোনো বাধা নেই। বিষয়টি নিশ্চিত করে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ গতকাল বিকালে সুপ্রভাতকে জানান, কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্সের দায়ের করা আবেদন আজ (১৫ এপ্রিল) খারিজ করে দিয়েছেন প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের বেঞ্চ। কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্সের পড়্গে শুনানিতে ছিলেন ব্যারিস্টার ফজলে নুর তাপস ও এএম আমিন উদ্দিন।
প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে কর্ণফুলী নদীর তীরে অবৈধ স’াপনা ও দখল সংক্রানত্ম বিভিন্ন খবর গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। পরে এসব প্রতিবেদন যুক্ত করে হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ জনস্বার্থে হাইকোর্টে রিট দায়ের করে। ওই রিটের চূড়ানত্ম শুনানি শেষে ২০১৬ সালের ১৬ আগস্ট আদালত কর্ণফুলী নদীর তীরে থাকা দুই হাজার ১৮৭টি অবৈধ স’াপনা সরানোর পাশাপাশি রায়ে ১১ দফা নির্দেশনা দেন। এরপরই চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন উচ্ছেদ অভিযান শুরম্ন করে। অভিযান শুরম্নর পর কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্সের স’াপনা উচ্ছেদ করতে পারেনি রিট মামলার
কারণে। এই স’াপনাটি ছাড়া আশপাশের সব স’াপনা গত ফেব্রম্নয়ারিতে উচ্ছেদ হয় জেলা প্রশাসনের অভিযানে। গত ৪ ফেব্রম্নয়ারি থেকে ১৮ ফেব্রম্নয়ারি পর্যনত্ম উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনার পর তা বন্ধ হয়ে যায়।