কক্সবাজার বিদেশি পর্যটকবাহী বাস ভাঙচুর করায় দুই পুলিশ ‘আটক’

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার

কক্সবাজার শহরের হোটেল-মোটেল জোন কলাতলী এলাকায় বিদেশি পর্যটকবাহী এক বাস ভাঙচুরে জড়িত থাকার অভিযোগে দুই পুলিশ সদস্যকে ‘আটক’ করা হয়েছে। কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের জিম্মায় রাখা হয়েছে আটক দুই পুলিশকে। এরা হলেন সুমন ত্রিপুরা ও জহিরুল হক। শুক্রবার রাত ৮টায় কলাতলী মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
সাভারের বাংলাদেশ হেলথ প্রফেশন্স ইনস্টিটিউটের রিহাবিলিটেশন সায়েন্স বিভাগের কর্মকর্তা লোকমান হোসেন জানান, তাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাস্টার্সের ৪র্থ ব্যাচের ১৭ জন বিদেশি শিক্ষার্থীসহ ৪০ জন শিক্ষাসফরে কক্সবাজার আসেন। তাদের মধ্যে শ্রীলঙ্কা, নেপাল, আফগানিস্তান ও ভূটানের নাগরিক রয়েছেন।
শুক্রবার রাত পৌনে ৮টার দিকে তারা টেকনাফ থেকে ফেরার পথে তাদের বহনকারী বাসটি কক্সবাজার শহরে প্রবেশের সময় কলাতলী মোড়ে ডলফিন চত্বরে পৌঁছায়। ওই সময় বিপরীতমুখী শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস তাদের বাসকে ধাক্কা দেয়।
বাসের ধাক্কা খেয়ে তাদের বিদেশি পর্যটকবাহী বাসটি পাশের একটি ইজিবাইকের ধাক্কা লাগে। ওই সময় তাৎক্ষণিক সাদা পোশাকধারী দুই ব্যক্তি নিজেদের দাঙা পুলিশ পরিচয় দিয়ে বিদেশি পর্যটকবাহী বাসটি আটকে দেন।
এক পর্যায়ে ওই দুই পুলিশ সদস্য উত্তেজিত হয়ে পর্যটকবাহী বাসের সামনে অংশের বামপাশের গ্লাসে ইট নিক্ষেপ করে। ফলে বাসের কয়েকটি গ্লাস ভেঙে যায়। এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন বিদেশি শিক্ষার্থীরা।
এরই মধ্যেই বিদেশি পর্যটকবাহী বাসের যাত্রীরা ঘটনাটি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে কক্সবাজার জেলা প্রশাসককে অবহিত করেন। পরে রাত ১০টার দিকে জেলা প্রশাসকের পর্যটন শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলাম জয় ঘটনাস’লে পুলিশ সদস্যদের জিম্মিদশা থেকে পর্যটকবাহী বাস ও যাত্রীদের উদ্ধার করেন। এসময় ওই পুলিশ সদস্যকে আটক করা হয়।