ঐতিহাসিক ম্যাচের দর্শক মাশরাফিরা

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক
Untitled-1

মিরপুর শের-ই-বাংলায় মাইলফলক স্পর্শকারী শততম ওয়ানডে ম্যাচকে সামনে রেখে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) অসতর্ক দৃষ্টিতে মাশরাফিরা নিজেদের দুর্ভাগা বলতেই পারেন! টুর্নামেন্টের সূচি নির্ধারণের সময় বিসিবি একটু সতর্ক হলে ঐতিহাসিক এই ম্যাচটির অংশ তারা হতে পারতেন। কিন্তু পারলেন না। খবর বাংলানিউজ।
গতকাল হোম অব ক্রিকেটে ত্রিদেশীয় সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে জিম্বাবুয়ে ও শ্রীলঙ্কার দ্বৈরথ তাদের দর্শক বানিয়ে দিল! তবে তাতে অবশ্য খুব বেশি হতাশ মনে হলো না টাইগার শিবিরকে। বরং বেশ স্বতঃস্ফূর্ত চিত্তেই তারা মাঠে হাজির হয়ে মাইলফলক স্পর্শকারী ম্যাচটির স্বাক্ষী হয়ে থাকলেন।
আগামীকাল শুক্রবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচকে সামনে রেখে এদিন সকালে ইনডোরে ছিল বাংলাদেশ দলের অনুশীলন। তা সেরে সবাই ম্যাচ দেখতে চলে গেলেন। বেশ হইচই করেই মাশরাফি, তামিম, নাসিররা উপভোগ করেন শের-ই-বাংলার ঐতিহাসিক এই ম্যাচটি।
তবে সবার চেয়ে মাশরাফির উদযাপনটিই ছিল বেশি চোখে পড়ার মতো। ২০০৬ সালের ৮ ডিসেম্বর যাত্রা শুরু করা এই ভেন্যুর গ্রাউন্ডসকর্মী আব্দুল মতিনের সাথে ম্যাচ চলাকালীন মাঠের বাইরে দাঁড়িয়ে ক্যামেরাবন্দি হন বাংলাদেশ ক্রিকেটের দিনবদলের দলপতি।
ফেসবুকেও তাকে নিয়ে স্ট্যাটাস দিয়েছেন। লিখেছেন, ‘তামিম, সাকিব আরও অনেকের ১০০ পেরিয়ে আজ মতি ভাইয়ের ১০০ নটআউট যেন বেশি আনন্দের। অভিনন্দ মতি ভাই। ২০০ এর অপেক্ষায় আছে শেরে বাংলা।’