সিটি কর্পোরেশনের সঙ্গে চুক্তি

এয়ারপোর্ট সড়ক সাজাবে জিপিএইচ

নিজস্ব প্রতিবেদক
Untitled-1

পতেঙ্গা থানাধীন ১৫ নম্বর ঘাট থেকে বোট ক্লাব পর্যন্ত প্রায় আড়াই কিলোমিটার দৈর্ঘ্য ও ১০ ফুট প্রস্থে শাহ আমানত বিমান বন্দর এলাকার মিড আইল্যান্ড বিউটিফিকেশন প্রকল্পের সৌন্দর্য বর্ধনের কাজ করবে জিপিএইচ ইস্পাত।
নগর ভবনের কে বি আবদুচ ছত্তার মিলনায়তনে গতকাল দুপুর সাড়ে ৩টায় এক চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেড ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম এ কথা জানান।
অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের পক্ষে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ও জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেডের পক্ষে ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম এ চুক্তি স্বাক্ষর করেন।
চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে জিপিএইচ ইস্পাতের অগ্রণী ভূমিকাকে প্রশংসনীয় উল্লেখ করে সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘প্রায় ১ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে জিপিএইচ গ্রুপ সৌন্দর্য বর্ধন করছে। এতে এয়ারপোর্ট রোড নতুন সাজে সাজবে।’
তিনি আরো বলেন, ‘চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ক্লিন ও গ্রিন সিটি বাস্তবায়ন কার্যক্রমে অনেক প্রতিষ্ঠান ও কর্পোরেট হাউস সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। আশা করা যাচ্ছে, চট্টগ্রাম নগরীকে পরিবেশবান্ধব ও দৃষ্টিনন্দন নগরী হিসেবে ২০১৮ সালে আমরা দেখতে সক্ষম হবো।’
তিনি চসিকের কাজের বর্ণনা দিতে গিয়ে বলেন, ‘চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নিজস্ব অর্থায়নে এয়ারপোর্ট রোডে নতুন ৩টি ব্রিজের বিউটিফিকেশনের কাজে ৩ কোটি টাকা ব্যয় করবে। এজন্য ইতোমধ্যে টেন্ডার আহ্বান করা হয়েছে।’
জিপিএইচ ইস্পাতের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘জিপিএইচ ইস্পাত সামাজিক দায়বদ্ধতা নিয়ে কাজ করছে। এর অংশ হিসেবে বর্তমান সরকারের উন্নয়নে সহযোগী ভূমিকা পালন করছে। এ ধারাবাহিকতায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন মেয়রের আহ্বানে সাড়া দিয়ে গ্রিন সিটি রূপান্তরের লক্ষ্যে বিমানবন্দর এলাকার সৌন্দর্য বর্ধন করা হচ্ছে।’
তিনি সৌন্দর্য বর্ধন প্রকল্প সম্পর্কে বলেন, ‘এয়ারপোর্ট রোডের ৭ হাজার ৫ শ ফুট মিড আইল্যান্ড সৌন্দর্য বর্ধনে কাজে আর্কিটেকচারাল ডিজাইনার সংস্থা হিসেবে পিটুপি ৩৬০ সহযোগিতা করছে।’
এ চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন জিপিএইচ ইস্পাতের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আলমাস শিমুল, চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামশুদ্দোহা, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিনসহ কয়েকজন ওয়ার্ড কাউন্সিলর।