‘এবার করে দেখানোর পালা’

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজকে সামনে রেখে ১০ জুলাই শুরু হয়েছিল মুশফিক-তামিমদের অনুশীলন ক্যাম্প। প্রায় দেড় মাসের এই ক্যাম্প এখন প্রায় শেষের পথে।
বিগত ৪৫ দিনের এই অনুশীলন ক্যাম্পে হেড কোচ হাথুরুসিংহে, পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ ও ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারায়নের উপস্থিতিতে ফিটনেস ট্রেনিং থেকে শুরু করে ব্যাটিং, বোলিং, ফির্ডিং ও কিপিং অনুশীলন হয়েছে বিস্তর। খবর বাংলানিউজ’র।
এবার সেগুলোই মাঠে প্রয়োগের পালা বলে জানালেন টাইগারদের ড্যাসিং ওপেনার তামিম ইকবাল, ‘আমরা যতদিন ধরে প্রস্তুতি নিয়েছি আমার মনে হয় অলমোস্ট সব জায়গায় কাভার করেছি। এখন শুধু এক্সিকিউট করার পালা। আরও যে দুই দিন সময় আছে এর মধ্যে ছোট ছোট যে কাজ করার দরকার ওইগুলো নিয়েই আমরা কাজ করছি। পাশাপাশি কোন জায়গা থেকে আরও বেটার ওয়েতে কাজ করতে পাড়ি তাই নিয়েই করছি। আশা করবো যে ২৭ তারিখের মধ্যে আমরা সম্পূর্ণ তৈরি হয়ে যাব। আশা করছি খুব ভালো টেস্ট সিরিজ হবে।’
গতকাল রাজধানীর গুলশানে কর্তফুলি ইন্ডাসট্রিজ লিমিটেড আয়োজিত এক চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে সংবাদ মাধ্যমকে তিনি একথা জানান।
সন্দেহ নেই অজিদের বিপক্ষে আসন্ন দুই ম্যাচ সিরিজের টেস্টে ঘরের মাঠের সুবিধা নিয়ে সফরকারীদের চাইতে স্বাগতিকরাই এগিয়ে থাকবে। তা সত্বেও পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন এবং ক্রিকেটে পরাশক্তি এই দলটির বিপক্ষে জয়ের কাজটি সহজ হবে না মত তামিমের।
তামিম আরও বলেন, ‘আমরা ঘরের মাঠে খেলছি আমাদের একটা এডভান্টেজ থাকবে। খেলার আগেই আমরা জিততে পারবো না। পাঁচটা দিন ভালো খেলে প্রত্যেকটা সেশন ফাইট করেই জিততে হবে। ওরা খুব পেশাদার দল। টেস্ট ক্রিকেটে অন্যতম সেরা দল। এটার জন্য আমরা জানি এটা সহজ হবে না অনেক কঠিন হবে।’
তবে কাজটি কঠিন হলেও অসম্ভব মনে করছেন না তিনি, ‘তবে এটা অসম্ভবও না যে আমরা হারাতে পারবো না। সব কিছু মাথায় রেখেই আমরা আগাচ্ছি, সবকিছু মাথায় রেখে আমরা অনুশীলন করছি দেড় মাস ধরে। সামনে মিটিংও করছি। আশা করছি ২৭ তারিখের মধ্যে আমরা যখন পুরোপরি তৈরি হয়ে যাবো।’
তামিম যদিও বলছেন অজিদের বিপক্ষে জয় অসম্ভব নয়, তথাপিও সফরকারী দলটি নিয়ে তাকে ভাবতেই হচ্ছে। বিশেষ করে অজিদের অভিজ্ঞ ও এই মুহূর্তে বিশ্বের অন্যতম সেরা স্পিনার নাথান লায়নকে তার ভাবনা থেকে কোন ভাবেই সরাতে পারছেন না, ‘ওদের সঙ্গে টপ কোয়ালিটির স্পিনার আছে, নাথান লায়ন সে বেশ ভালো একজন স্পিনার। আমাদের সবকিছুর জন্য তৈরি থাকতে হবে।’