ইপসা’র চাকরি মেলা উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এমপি কমল

এনজিওগুলো কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে ভূমিকা রাখছে

বিজ্ঞপ্তি
1

উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের কাছে রোল মডেল। মানব উন্নয়ন সূচকে বাংলাদেশ সম-সাময়িককালে স্বাধীন হওয়া রাষ্ট্রগুলো থেকে অনেক এগিয়ে। মহাকাশে স্যাটেলাইট প্রেরণ করে বাংলাদেশ বিশ্বকে দেখিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশের সামর্থ্যের অবস’া। ইতিমধ্যে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের মার্যাদা লাভ করেছে। এসবই সম্ভব হয়েছে বর্তমান সরকারের যোগ্য নেতৃত্ব এবং সম্মিলিত সকলের প্রচেষ্টায়। এখন আমাদেরকে যুবদের কর্মসংস’ান সৃষ্টিতে খুব বেশি নজর দিতে হবে। এ বিপুল যুব জনগোষ্ঠীর যদি কর্মসংস’ান করতে পারি কিংবা প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাদেরকে প্রশিক্ষিত করে আত্ম-কর্মসংস’ান সৃষ্টিতে সহযোগিতা করতে পারি তাহলে দেশের চলমান উন্নয়ন কার্যক্রম আরও বেশি গতিশীল হবে। সরকারের পাশাপাশি আমাদের সকলকে যুব কর্মসংস’ান সৃষ্টিতে কাজ করতে হবে। বেসরকারি উন্নয়ন সংস’া বা এনজিওসমূহ এ বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।
গতকাল কক্সবাজারের হোটেল ইউনি রিসোর্টে ইপসা, হোপ’৮৭ বাংলাদেশ এবং চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ, কক্সবাজারের যৌথ উদ্যোগে এবং জিসিইআরএফ, এস্প্রিট ও ইউ ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় ‘ইপসা চাকরি মেলা ২০১৮’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল এ অভিমত ব্যক্ত করেন। ইপসা’র টিম লিডার খালেদা বেগমের সভাপতিত্বে এবং প্রোগ্রাম কোঅর্ডিনেটর (ক্যাম্পেইন অ্যান্ড পার্টনারশিপ) মোহাম্মদ শহিদুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইপসা ইয়েস প্রকল্পের ফোকাল পারসন নাছিম বানু শ্যামলী। বিশেষ অতিথি ছিলেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ, কক্সবাজার এর সভাপতি আবু মোরশেদ চৌধুরী, নোঙ্গর’র নির্বাহী পরিচালক দিদারুল আলম রাশেদ, সমাজসেবক রশিদ আহমদ প্রমূখ। দিনব্যাপী এ চাকরি মেলায় বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস’া, পাঁচতারকা মানের হোটেল, নারী উদ্যোক্তা, যুব উদ্যোক্তারা অংশগ্রহণ করেন। মেলায় কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন এলাকার প্রায় এক হাজার চাকরিপ্রার্থী অংশগ্রহণ এবং তাদের বায়োডাটা জমা প্রদান করেন। সাইমুম সওেয়ার কমল এমপি কক্সবাজারের স’ানীয় জনগোষ্ঠীকে নিয়ে বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম গ্রহণ করার বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন এবং রোহিঙ্গা রেসপন্স কার্যক্রমে কক্সবাজারের স’ানীয় যুব জনগোষ্ঠীকে অগ্রাধিকার দেওয়ার জন্য কর্মরত সকল এনজিওর প্রতি আহ্বান জানান।

: