সুফল পাবে সাড়ে ৬ লাখ জনগণ

এগিয়ে চলছে সরকারি হাসপাতালের নির্মাণকাজ

নিজস্ব প্রতিনিধি, চকরিয়া

২০১৮ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর সাবেক স্বাস’্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি আনুষ্ঠানিক নির্মাণ কাজের উদ্বোধনের পর বর্তমানে উন্নয়নের ছোঁয়ায় এগিয়ে চলেছে কক্সবাজারের চকরিয়ার উপজেলা সরকারি হাসপাতালের নির্মাণ কার্যক্রম। ৫০ শয্যা থেকে একশত সয্যায় উন্নীত এ হাসপাতালে নির্মিত হচ্ছে নতুন ভবন। যেখাবে থাকবে নতুন আরও ৫০টি শয্যা। এছাড়া যুক্ত হচ্ছে আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা। নির্মাণ কাজ শেষ হলে উপজেলার সাড়ে ৬লাখ জনসধারণ চিকিৎসাখাতে সুফল পাবে। এখানে সংযুক্ত হবে বিপুল পরিমাণ চিকিৎসক, নার্স ও কর্মকর্তা-কর্মচারী। গত শনিবার দুপুরে হাসপাতালের নতুন ভবন নির্মাণকাজ পরিদর্শন করেছেন চট্টগ্রাম স্বাস’্য বিভাগের উপ-পরিচালক ডা.আব্দুস সালাম। এ সময় উপসি’ত ছিলেন চকরিয়া উপজেলা স্বাস’্য হাসপাতালের প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ শাহবাজ, হাসপাতালের পরিসংখ্যান কর্মকর্তা এম.এ হামজা প্রমুখ। মোহাম্মদ শাহবাজ বলেন, ৫০ শয্যার হাসপাতালটি ১শ শয্যায় উন্নীত করতে ২৫ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয় স্বাস’্য মন্ত্রণালয়। এখানে নতুন ভবনটি হবে চার তলা। ডাক্তার, নার্স, স্টাফদের কোয়ার্টারের পাশাপাশি এখানে আধুনিক আরো সুযোগ-সুবিধা থাকবে। ভবনটি নির্মিত হলে উপজেলার ১৫ লাখ মানুষ উন্নত স্বাস’্যসেবা পাবে। জানতে চাইলে নির্মাণ কাজের তদারককারী প্রতিষ্ঠান স্বাস’্য প্রকৌশল অধিদপ্তর কক্সবাজারের সহকারি প্রকৌশলী মোরশেদুল আলম বলেন, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ডিসিএল ম্যাগ কার্যাদেশ প্রাপ্তির পর ২০১৮ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে হাসপাতালের নতুন অবকাঠামো নির্মাণ কাজ শুরু করেছেন। প্রকল্পের আওতায় নির্মিত হবে পাঁচটি আধুনিকমানের নতুন ভবন। তিনি বলেন, হাসপাতালের একশ শয্যায় উন্নীতকরণে সাততলা ফাউন্ডেশনে ৪তলা বিশিষ্ট নতুন হাসপাতাল ভবন, হাসপাতালের তত্তাবধায়কের বাসা, ৫তলা বিশিষ্ট হাসপাতালের স্টাফ কোয়ার্টার, ৫তলা বিশিষ্ট হাসপাতালের নার্স কোয়ার্টার ও ডক্টরস কোয়াটার। এছাড়া নির্মিত হচ্ছে গাড়ির রাখার গ্যারেজ এবং চালক হাউজ। কাজের গুণগতম মান ঠিক রেখে স্বচ্ছতার মাধ্যমে নির্মাণ কার্যক্রম সমাপ্ত করার জন্য আমাদের পক্ষ থেকে সার্বক্ষণিক নজরদারি রয়েছে।