সাদার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ড. আইনুন নিশাত

উন্নয়নের জন্য এক্সপার্ট নয়, প্রয়োজন প্রফেশনাল

নিজস্ব প্রতিবেদক গ্ধ

আমাদের রাষ্ট্র এখন প্রযুক্তি ও প্রকৌশলের হাত ধরে এগিয়ে চলছে। এ উন্নয়নের জন্য আমাদের প্রফেশনাল প্রয়োজন, কোন এক্সপার্ট লাগবে না। কেননা প্রফেশনালরা কাজ করে। আর এক্সপার্টরা বসে বসে সমালোচনা করে।
সাদার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ’র পুরকৌশল বিভাগের ‘রিসার্চ অ্যান্ড ইনোভেশন ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (আইসিআরআইসিই)’ সমাপনীতে পানি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ড. আইনুন নিশাত এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, ‘বিশ্ব এখন টিকে আছে ইনোভেশন নিয়ে। ইনোভেশন খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যা আমাদের দেশকে এগিয়ে নেবে। ইনোভেশন করতে পারলেই সে সমাজ হবে ট্রান্সফরমেশন এবং সমাজের সাথে ইনোভেশনকে ধারণ করতে হবে। দেশে পোশাকশিল্প, সেনিটেশান, খাদ্যসহ অনেক ক্ষেত্রে ইনোভেশন হয়েছে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো বন্যা
ব্যবস’াপনা, পানি, সেচ ও ড্রেনেজ ব্যবস’া। কারণ এসব কার্যক্রম ভালোভাবে হলে আমাদের খাদ্য সমস্যা থাকবে না এবং দুর্যোগে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমে যাবে।’
তিনি পুরাকৌশল বিভাগের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, ‘সিভিল ইঞ্জিনিয়াররা প্রত্যক্ষভাবে জনগণের জন্য কাজ করে। তাই তাদের নিরাপত্তার দিকে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। নির্মাণ ব্যয় কমিয়ে ঝুঁিকপূর্ণ স’াপনা তৈরি করা ঠিক হবে না।’
তিনি সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে সুপ্রভাতকে বলেন, ‘আমাদের দেশে যখন যমুনা সেতুর কাজ হয়েছে আমরা তখন ততটা ম্যাচিউর হতে পারিনি। বর্তমানে সরকার আমাদের এক্সপার্টদের প্রফেশনাল করার জন্য তাদের বিভিন্ন জায়গায় কাজে লাগিয়েছেন। তাই আমরা অনেক ম্যাচিউর হয়েছি। ফলে আমাদের এখন অনেক প্রফেশনাল আছে। কাজ করতে করতে অনেক কিছুই পরিবর্তন করার প্রয়োজন হয়। নিজস্ব প্রফেশনাল থাকলে ভালো মানের কাজ ও সাশ্রয় করা সম্ভব হয়।’
দুই দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠানে তিনটি কি-নোট সেশন ও সাতটি টেকনিক্যাল সেশন ছিল।
গতকাল শনিবার সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে কি-নোট স্পিকার ছিলেন আমেরিকার শিকাগো স্টেট ইউনিভার্সিটির অ্যাসোসিয়েট ডিন অধ্যাপক ড. আলী নেওয়াজ ও গাজীপুরের ইসলামিক ইউনিভার্সিটির অব টেকনোলজি’র অধ্যাপক ড. হোসেন মোহাম্মদ শাহিন।
অধ্যাপক ড. হোসেন মোহাম্মদ শাহীন কর্ণফুলী টানেলের ডিজাইন এবং নির্মাণ বিষয়ে আলোচনা করেন। তিনি বলেন, ‘কর্ণফুলী টানেল হলে দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাথে শহরের ব্যবধান আর থাকবে না এবং টানেলের উভয় পাশে উন্নয়ন বিপ্লব শুরু হবে।’
সম্মেলনে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন গবেষকদের স্ট্র্যাকচারাল, আর্থকোয়েক, জিওটেকনিক্যাল অ্যান্ড ফাউন্ডেশন, ট্রাফিক অ্যান্ড ট্রান্সপোর্টেশন, ওয়াটার রিসোর্সেস, ফ্লাড কনট্রোল অ্যান্ড মিটিগেশন, এনভায়রনমেন্টাল, মেটোরিয়ালস ইঞ্জিনিয়ারিং, কনস্ট্রাকশন অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট, আরবানাইজেশন অ্যান্ড বিল্ড এনভায়রনমেন্ট, অ্যাডভান্সেস ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং এডুকেশন ইত্যাদি বিষয়ে ৪৪টি গবেষণা প্রবন্ধ উপস’াপন ও আলোচনা করা হয়।