ঈদের আমেজ অফিস পাড়ায়

নিজস্ব প্রতিবেদক

পবিত্র ঈদুল ফিতরের ছুটি শেষে খুলেছে দেশের সব সরকারি অফিস এবং বেসরকারি ব্যাংক-বীমা অফিসসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান। টানা কয়েকদিনের ছুটির পর গতকালের প্রথম কর্মদিবসে অফিস-আদালতে কোনো ব্যস্ততা দেখা যায়নি। নগরীর অন্যতম বাণিজ্যিক কেন্দ্র আগ্রাবাদ এলাকায় রাস্তাঘাট ও অফিসপাড়ায় বিরাজ করছিল ঈদের আমেজ। প্রায় সব প্রতিষ্ঠানেই কমকর্তা ও কর্মচারীদের কম উপসি’তি লক্ষ্য করা যায়। ব্যাংকগুলোতেও স্বাভাবিক কার্যদিবসের মত গ্রাহকের উপসি’তি দেখা যায়নি। ফলে অফিস পাড়াতে চিরচেনা চাঞ্চল্য ও ব্যস্ততা অনেকটাই অনুপসি’ত।
প্রায় প্রতিটি প্রতিষ্ঠানেই অলস সময় কাটিয়েছেন প্রথম দিনে উপসি’ত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কমকর্তা-কর্মচারীরা। বেশিরভাগ বিভাগ ফাঁকা, যারা এসেছেন তারা নিজেদের মধ্যে কুশল বিনিময় আর আলাপ-আলোচনায় ব্যস্ত ছিলেন। জনসেবায় সম্পৃক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোতে গ্রাহক ও কর্মকর্তাদের মধ্যে ঈদের কুশল বিনিময় করে সময় কাটাতে দেখা গেছে। সোনালী ব্যাংক কর্পোরেট শাখার সিনিয়র প্রিন্সিপ্যাল অফিসার নির্মল মুহুরী বলেন, ‘অধিকাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারী উপসি’ত আছেন। লেনদেন খুব বেশি হচ্ছে না। সবখানে এখনো ঈদের আমেজ রয়েছে। আগামী সপ্তাহের শুরু থেকেই হয়তো পুরোদমে অফিস শুরু হবে।’
আগ্রাবাদস’ সরকারি ভবনের অফিসগুলোতে ঈদের পর প্রথম কর্মদিবসে দেখা যায়, একে অপরকে দেখা মাত্রই বুকে জড়িয়ে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন। কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যেও যেন কোনো ভেদাভেদ নেই। অধিকাংশ অধিদপ্তরের
কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা জানান, এবার ঈদের ছুটি তিনদিন থাকায় অনেকেই দূর-দূরান্তের গ্রামের বাড়ি ঈদ পালন করতে যাননি। আবার অনেকেই ঈদের ছুটির সঙ্গে আরও দু’একদিন ছুটি নিয়েছেন। তাই এ সপ্তাহের শেষের দিক থেকে পুরোদমে কাজ শুরু হবে।
একইভাবে গতকাল দেশের পুঁজিবাজারের কার্যক্রমও শুরু হয়। সকাল ১০টার পর থেকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের লেনদেন শুরু হয়। গতকাল ব্যবসায়ের পরিমাণ ছিলো ৪ হাজার ৯২৩, ভলিউম ছিলো ২৯ লক্ষ ৫০ হাজার ৭৪২ এবং লেনদেনের পরিমাণ ছিলো ১১৮ দশমিক ৪৪ মিলিয়ন টাকা।